১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দুই দফায় দেশে ফিরছে ফুটবলাররা

স্পোর্টস রিপোর্টার, ত্রিবান্দ্রাম, কেরল থেকে ॥ ‘জীবন ঘিরে রাখে অদৃশ্য কষ্টগুলো হরদম/হাসি কেড়ে নিয়ে বিরাজিত অজান্তেই মুখটা থমথম/দু’চোখ জড়ায়ে থাকে ছলছল/হঠাৎ গড়িয়ে পরে টলটল পানি/সময়ের গাড়ি চলে খুব দ্রুত/সামনে পেছনে ছড়ায়ে ব্যর্থতার গ্লানি/জীবন জুড়ে কেবলই ধোঁয়াশার ধুম্রজাল/পথ চলতে চলতে থমকে দাঁড়াই/ধরে রাখতে পারি না হাল ...’ এই কবিতার পঙ্ক্তিগুলোর মতোই হাল এখন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের। এই নিয়ে টানা তিন সাফ ফুটবলের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে তারা। এখন অবস্থাটা দাঁড়িয়েছে, ‘ক্লান্ত তনু মন, ফিরে চল আপন ভুবন!’ তবে কেরল থেকে ঢাকা আসি-আসি করেও আপাতত আসা হচ্ছে না মামুনুলদের। তারা দেশে ফিরবেন, তবে আরও দু-একদিন বাদে, তাও আবার একসঙ্গে নয়, দুই দফায়! আফগানিস্তান ও মালদ্বীপের কাছে হেরে সাফ ফুটবলের সেমিতে যাওয়ার স্বপ্নভঙ্গ হওয়ার পর অবশ্য ভুটানকে হারিয়ে সান্ত¡নার জয় পাওয়া গেছে।

অথচ খেলোয়াড়দের সঙ্গে না নিয়েই দেশে চলে গেছেন দলের সাত কর্মকর্তা! সাত জনের তালিকায় আছেন কোচ মারুফুল হক, ম্যানেজার আমিরুল ইসলাম বাবু, টিম লিডার ইকবাল হোসেন, এক পর্যবেক্ষক ও বাফুফের এক সহ-সভাপতির প্রতিনিধিও। আরও জানা গেছে দলের জুনিয়র ফুটবলাররা বৃহস্পতিবার এবং সিনিয়র ফুটবলাররা শুক্রবার ঢাকা পৌঁছবেন। যদিও শিষ্যদের সঙ্গে নিয়েই যেতে চেয়েছিলেন কোচ মারুফুল হক। তিনি চেয়েছিলেন দলের শেষ জন হিসেবে কেরল ত্যাগ করতে। কিন্তু ঢাকা থেকেই সাত কর্মকর্তার টিকেট করে পাঠানো হয়। এজন্যই বাধ্য হয়ে তাদের ঢাকাগামী বিমানে চেপে বসতে হয়। দলের খেলোয়াড়দের কেন দুই ভাগে পাঠানো হচ্ছে? জানা গেছে, সব খেলোয়াড়দের একসঙ্গে টিকেট পাওয়া যায়নি। তাই দুই দিনে আলাদা গ্রুপ অনুযায়ী তাদের টিকেট কেনা হয়েছে। সাফে ব্যর্থতার কারণ খতিয়ে দেখতে ইতোমধ্যেই বাফুফে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। আভাস দেয়া হয়েছে দলে পরিবর্তন আনার, এমনকি ঢেলে সাজানো হবে ম্যানেজমেন্টও। তবে এমন পদক্ষেপ গ্রহণ থেকে আপাতত সরে এসেছে বাফুফে। কেননা আর ক’দিন পরেই (৮-১৮ জানুয়ারি) ঢাকা ও সিলেটে অনুষ্ঠিত হবে ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট।’ আসর শুরুর আগে বেহাল অবস্থায় বাংলাদেশ দল। কোচ মারুফুল হকও সরে দাঁড়িয়েছেন। মামুনুলও তাই। এখন এত অল্প সময়ের মধ্যে নতুন করে দল গঠন করা সম্ভব না। কোচও আনা সম্ভব নয়।