২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কোচদের ঠিকানা বদলে তোলপাড়

টি ইসলাম তারিক ॥ কোচের চাকরিটাকে বলা হয় ‘মিউজিক্যাল চেয়ার’। কখন কি হয় বলা মুশকিল। যে কোন মুহূর্তেও চলে যেতে পারে চাকরি। চলতি মৌমুমে বিশ্ব ক্লাব ফুটবলে বিভিন্ন দলের কোচদের ঠিকানা পরিবর্তন নিয়ে রীতিমতো তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। ইতোমধ্যে জার্মান পরাশক্তি বেয়ার্ন মিউনিখ ছাড়া নিশ্চিত হয়েছে পেপ গার্ডিওলার। মিউনিখে আসাও নিশ্চিত হয়েছে কার্লো আনচেলোত্তির। তেমনি ইংলিশ ক্লাব চেলসি থেকে বরখাস্ত হয়েছেন জোশে মরিনহো। তার পরিবর্তে দ্য ব্লুজদের ভারপ্রান্ত কোচ হয়েছেন গাড হিডিংক। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকেও লুইস ভ্যান গালের চলে যাওয়ার গুঞ্জন। সেখানে যুক্ত হতে পারেন মরিনহো। আর গার্ডিওলা আসতে পারেন ম্যানচেস্টার সিটিতে। সেক্ষেত্রে আবারও ডাগআউটে মরিনহো-গার্ডিওলা দ্বৈরথ দেখার সুযোগ হতে পারে ক্রীড়াপ্রেমীদের। অনেকদিন থেকেই গুঞ্জন ছিল গার্ডিওলা বেয়ার্ন ছাড়বেন। অবশেষে নিজের সিদ্ধান্তের কথা পাকাপাকিভাবে জানিয়েছেন সাবেক বার্সিলোনা কোচ। বাভারিয়ানদের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করতে সম্মত হননি তিনি। এর ফলে আগামী মৌসুমে তার জায়গায় বেয়ার্নের দায়িত্ব পালন করবেন কার্লো আনচেলোত্তি। তবে খুব কম সময়েই ক্লাবকে সাফল্য উপহার দেওয়ায় গার্ডিওলার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে বেয়ার্নের প্রধান নির্বাহী কার্ল হেইঞ্জ রুমিনগে বলেন, ‘গার্ডিওলার কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। বাভারিয়ানদের তিনি অনেক কিছু দিয়েছেন। আশা করছি এ মৌসুমেও সাফল্য পাবেন তিনি।’ ২০১৩ সালে বেয়ার্নের দায়িত্ব নেয়ার পর ক্লাবকে দুটি লিগ শিরোপা আর জার্মান কাপ জেতান পেপ গার্ডিওলা। আর গার্ডিওলার উত্তরসূরি হিসেবে আনচেলোত্তির নামটিও জানিয়ে দেন রুমিনগে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘বেয়ার্নের হয়ে আবারও দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন কার্লো আনচেলোত্তি। তিনি এর আগেও সফলভাবে বেয়ার্নের দায়িত্ব পালন করেছেন। আশা করি দ্বিতীয় দফায় দায়িত্ব নিয়েও সফল হবেন তিনি।’ ৫৬ বছর বয়সী আনচেলোত্তি এ বছর রিয়াল মাদ্রিদ থেকে বরখাস্ত হওয়ার পর কোন ক্লাবের কোচের দায়িত্বে নেই। তই আগামী মৌসুমে গার্ডিওলার জায়গায় বেয়ার্নের দায়িত্ব নিয়েই নতুন করে শুরু করবেন সাবেক রিয়াল মাদ্রিদের এই অভিজ্ঞ কোচ। আর সাবেক বার্সিলোনার কোচ গার্ডিওলার ঠিকানা হতে পারে ম্যানসিটি। ক্লাবটির বর্তমান কোচ ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনিও মানছেন তা। এ বিষয়ে সাবেক মালাগার কোচ পেলেগ্রিনি বলেন, ‘কোন না কোনদিন সে এখানে আসবেই। ভবিষ্যতেও এখানে কাজ করতে পারে সে। আমি মনে করি ম্যানচেস্টার সিটিতে কাজ করার সুযোগ আছে।’

এদিকে গত সপ্তাহেই জোশে মরিনহোকে বহিষ্কার করেছে চেলসি। এরই মধ্যে গাস হিডিংকে নিজেদের নতুন কোচ হিসেবে দায়িত্বও দিয়ে দিয়েছে ব্লুজরা। কিন্তু এই মুহূর্তে প্রশ্ন হলো, মরিনহো কোথায় যাচ্ছেন? আর সেই প্রশ্নের উত্তরে নিজের প্রতিনিধির মাধ্যমে অন্তত একটা ব্যাপার নিশ্চিত করেছেন ৫২ বছর বয়সী এই হাই প্রোফাইল ফুটবল কোচ। জানিয়ে দিলেন ইংল্যান্ড ছাড়ছেন না তিনি! আর এরপরই গুঞ্জন শুরু হয়েছে মরিনহোর নতুন গন্তব্য নিয়ে। তবে কি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন ‘স্পেশাল ওয়ান’? ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার গুঞ্জনটাকে গুরুত্ব দেয়ার যথেষ্ট কারণও আছে। ইউনাইটেডের বর্তমান কোচ লুই ভ্যান গালের পারফরম্যান্সে খুব একটা সন্তুষ্ট নন সমর্থকরা। যদিও তার চুক্তির মেয়াদ আছে ২০১৬-১৭ মৌসুম পর্যন্ত। কিন্তু ততদিন ক্লাব তাকে রাখবে সেটা জোর গলায় বলার মানুষ খুব বেশি খুঁজে পাওয়া যাবে না। চ্যাম্পিয়ন্স লীগ থেকে ইতোমধ্যেই ছিটকে পড়েছে ইউনাইটেড। নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচেও পয়েন্ট টেবিলের তলানির দিকে থাকা নরউইচ সিটির কাছে হেরেছে রেড ডেভিলরা। এই পরাজয়ে পয়েন্ট টেবিলে এক ধাপ নেমে তাদের অবস্থান এখন পাচে। যে কারণে সবকিছু মিলিয়ে ভ্যান গালের ইউনাইটেড মিশনের ভবিষ্যত খুব একটা নিরাপদ বলা যায় না। আর তাই মরিনহো এবং ইউনাইটেড দু’পক্ষই একে অপরের ব্যাপারে আগ্রহী বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এরই মধ্যে ক্লাবটির শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগও নাকি শুরু করেছেন পর্তুগীজ কোচ। এই হিসেবে ধরে নেয়া যায়, হয়তো আগামী মৌসুমে রেড ডেভিলদের নতুন কোচ? হতে যাচ্ছেন চেলসিকে গত মৌসুমে লিগ শিরোপা উপহার দেয়া মরিনহো। তবে ওল্ডট্রাফোর্ডে তার কাজটা খুব একটা সহজ হবে কিনা, সেই প্রশ্ন থেকেই যায়। এর আগে স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন অবসর নেয়ার পরও মরিনহো ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছিলেন।