১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবেন কূটনীতিকরা, দুটি বিদেশী সংস্থাও মাঠে থাকছে

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ আজকের পৌরসভা নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবেন বিদেশী কূটনীতিকরা। তবে বেশিরভাগ বিদেশী কূটনীতিক নির্বাচন পর্যবেক্ষণে মাঠপর্যায়ে থাকছেন না। ঢাকা থেকেই তারা এ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ ও মূল্যায়ন করবেন। এছাড়া দেশীয় পর্যবেক্ষক সংস্থার পাশাপাশি দুটি বিদেশী পর্যবেক্ষক সংস্থা নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবে। কূটনৈতিক সূত্র এসব তথ্য জানায়।

দেশের ২৩৪টি পৌরসভায় আজ বুধবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিটি জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচন বিদেশী কূটনীতিকরা সতর্কতার সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করেন। আজকের পৌরসভা নির্বাচনও বিদেশী কূটনীতিকরা পর্যবেক্ষণ করবেন। তবে বেশিরভাগ কূটনীতিক মাঠপর্যায়ে গিয়ে সরাসরি নির্বাচন পর্যবেক্ষণে থাকছেন না বলে জানা গেছে। তারা মাঠপর্যায়ে না গেলেও নির্বাচনের সামগ্রিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করবেন।

পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে বিদেশী কূটনীতিকরা অনেক আগে থেকেই পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। এ নির্বাচন ঘিরে সরকার ও সরকারবিরোধী পক্ষের কার্যক্রমও বিদেশীদের পর্যবেক্ষণে ছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতোমধ্যেই পৌরসভা নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। সম্প্রতি ঢাকায় এসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি টমাস শ্যানন এ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের তাগিদ দেন। এছাড়া বিএনপির প্রতি এ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্যও আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে পৌরসভা নির্বাচন পরিস্থিতি নিয়ে পর্যবেক্ষণে রয়েছে যুক্তরাজ্যও। তবে পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে বাংলাদেশে সহিংসতা হতে পারে বলেও আশঙ্কা করেছে দেশটি। সে কারণে বাংলাদেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্যের নাগরিকদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। এছাড়া পৌরসভা নির্বাচনের দিনে যুক্তরাজ্যের নাগরিকদের চলাফেরায়ও সতর্ক থাকতে বলেছে দেশটি।

পৌরসভা নির্বাচন কেন্দ্র করে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দফতর থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশে বিএনপি নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোটের উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। ৩০ ডিসেম্বর পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে এ উত্তেজনা আরও বাড়তে পারে। এ সময়ে প্রতিবাদ, সহিংসতা ও সংঘর্ষ হতে পারে। দেশজুড়ে সহিংসতাও হতে পারে। এসব বিষয় উল্লেখ করে দেশটির নাগরিকদের সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা করতে বলা হয়েছে।

এদিকে পৌরসভা নির্বাচন পরিস্থিতি ইতোমধ্যেই বিদেশী কূটনীতিকদের সামনে অবহিত করেছে বিএনপি। বিদেশী কূটনীতিকদের কাছে দলটির পক্ষ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়া পৌরসভা নির্বাচন পর্যবেক্ষণে তাদের অনুরোধও করেছে বিএনপি। তবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের আগেই বিএনপির এসব অভিযোগ আমলে নেননি বিদেশী কূটনীতিকরা। তারা বিএনপিকে পরামর্শ দিয়েছে, আগে নির্বাচন হোক। নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরই কেবল অভিযোগ করা যেতে পারে। এছাড়া কোনভাবেই পৌরসভা নির্বাচনে অংশগ্রহণ থেকে বিরত না থাকার জন্য বিএনপিকে পরামর্শ দেন তারা।

কূটনৈতিক সূত্র জানায়, দুই বিদেশী নাগরিক হত্যার পর বিদেশী কূটনীতিকরা চলাফেরায় সতর্কতা অবলম্বন করছেন। সে কারণে এবার মাঠপর্যায়ে গিয়ে নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে তারা অনাগ্রহী। তবে নির্বাচনের সামগ্রিক পরিস্থিতি মূল্যায়ন করবেন তারা।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, এবারের পৌরসভা নির্বাচনে মাত্র দুটি বিদেশী পর্যবেক্ষক সংস্থা পর্যবেক্ষণ করবে। এ দুটি সংস্থা হলো ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ও ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস। এই দুই সংস্থার প্রতিনিধিরা নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবেন। পাশাপাশি দেশীয় পর্যবেক্ষক সংস্থার প্রতিনিধিরাও নির্বাচন পর্যবেক্ষণে থাকবেন। অবশ্য নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, বিদেশী পর্যবেক্ষক ও বিদেশী কূটনীতিকদের পৌরসভা নির্বাচন পর্যবেক্ষণের জন্য আবেদন করতে নির্ধারিত কোন সময়সীমা নেই। নির্বাচন পর্যবেক্ষণের যে কোন সময় তারা নির্বাচন কমিশনের নিকট আবেদন করতে পারেন।

এবারের পৌরসভা নির্বাচনে মাত্র দুটি বিদেশী পর্যবেক্ষক সংস্থা পর্যবেক্ষণে আগ্রহ প্রকাশ করলেও গত ২৮ এপ্রিল ঢাকা ও চট্টগ্রামের তিন সিটি কর্পোরেশনে বিদেশী পর্যবেক্ষকদের ছিল সরব উপস্থিতি। সে সময় বিদেশী পর্যবেক্ষক সংস্থা ছাড়াও ঢাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, কানাডা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জার্মানি ইত্যাদি দেশের কূটনীতিকরা মাঠপর্যায়ে থেকে নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন।

নির্বাচিত সংবাদ