১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খুলনায় ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় শিক্ষককে জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনার ডুমুরিয়া কলেজের এক ছাত্রীকে মোবাইল ফোনে উত্ত্যক্তের ঘটনায় একই কলেজের এক শিক্ষককে ৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ রফিকুল হাসান ভ্রাম্যমাণ আদালতে এই জরিমানা করেন। সোমবার রাতে তাকে এই দ- দেয়া হয়। দ-প্রাপ্ত শিক্ষক হলেন মঞ্জুরুল হক মুকুল। এর আগে বিকেলে কলেজ ছাত্রীর মা কলেজ অধ্যক্ষের কাছে প্রতিকার চেয়ে এবং তার মেয়েকে আর কলেজে না পাঠনোর সিদ্ধান্ত জানিয়ে একটি আবেদন করেন।

জানা গেছে, শিক্ষক কর্তৃক যৌন নিপীড়নের শিকার ওই ছাত্রী ডুমুরিয়া কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় পড়ালেখা করে। একই কলেজের একই শাখার শিক্ষক মোঃ মঞ্জুরুল আলম মুকুল তাকে প্রতিনিয়ত উত্ত্যক্ত করতেন। এছাড়া ভাল ফল করিয়ে দেবে এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে নানা রকম অশ্লীল কথাবার্তা বলতেন তিনি। ছাত্রীটি একটি হিন্দু পরিবারের সদস্য। সর্বশেষ গত ১৬ ডিসেম্বর রাতে ওই শিক্ষক মোবাইল ফোনে ছাত্রীর সঙ্গে নানা রকম অশ্লীল কথা বলে এবং মোবাইল ফোনে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়। নিরাপত্তার স্বার্থে মেয়েকে আর কলেজে না পাঠানোর সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে ছাত্রীর মা কলেজের অধ্যক্ষ ও একই সঙ্গে কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি বরাবর লিখিত আবেদন করেন।

ডুমুরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ হোসনেয়ারা বেগম জানান, কলেজের এক ছাত্রীর মা শিক্ষক মঞ্জুরুল হক মুকুলের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও মোবাইল ফোনে উত্ত্যক্তের অভিযোগ করেছেন। অভিযোগ পত্রে তিনি তার মেয়েকে কলেজে পাঠাবেন না এবং এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেবে না বলে জানান। ঘটনাটি কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে অবহিত করা হয়। পরে ঘটনার তাৎক্ষণিক সত্যতা পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে আর্থিক জরিমানা করেন।

ডুমুরিয়া কলেজ পরিচালনা বোর্ডের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সামছুদ্দৌজা বলেন, অভিযোগের সত্যতা পেয়ে কলেজ শিক্ষক মঞ্জুরুল আলম মুকুলের বিরুদ্ধে ৫০৬ ধারায় শাস্তি প্রদান করা হয়েছে। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নেয়া হবে। ওই ছাত্রীকে স¤পূর্ণ বিনা খরচে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে ফরম পূরণের সুযোগ দেয়াসহ সার্বিক নিরাপত্তা দেয়া হবে বলেও তিনি জানান।