২১ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গফরগাঁওয়ে মেয়র প্রার্থী হলফনামায় কাউন্সিলর

  • বাছাইয়েও ধরা পড়েনি

শেখ আব্দুল আওয়াল, গফরগাঁও ॥ পৌরসভা নির্বাচনে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে বিএনপির মেয়র প্রার্থী শাহ্ আবদুল্লাহ্ আল মামুন। মেয়র প্রার্থী হিসেবে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও হলফনামায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে প্রার্থী বলে তথ্য দিয়েছিলেন। বাছাইকালেও ওই ভুল ধরা পড়েনি। এরপর প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে প্রচারে নামেন শাহ্ আবদুল্লাহ্ আল মামুন।

কিন্তু সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী বলে তথ্য দিয়ে মেয়র প্রার্থী হিসেবে প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার কারণ জানতে চাইলে গফরগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পৌরসভা নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার সিদ্ধার্থ শংকর কু-ু বলেন, ‘এটা ভুল ছিল। তবে এখন আমার কিছুই করার নেই। কেউ অভিযোগ করলে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’ জানা গেছে, গফরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি নেতা শাহ্ আব্দুল্লাহ্ আল মামুন দলের মনোনয়ন পেয়ে মেয়র প্রার্থী হন। দলের মনোনয়নের সঙ্গে রিটার্নিং অফিসারের কাছে দেয়া হলফনামায় তিনি নিজেকে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী বলে তথ্য দেন। হলফনামায় সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী বলে তথ্য দিলেও ওয়ার্ড নম্বর উল্লেখ করেননি। রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বাছাইকালেও এই ভুল ধরা পড়েনি। কিন্তু দলের মনোনয়ন জমা দেয়ায় তিনি ধানের শীষ প্রতীক বরাদ্দ পান। ভুলের প্রসঙ্গে জানতে যোগাযোগ করা হলে শাহ্ আবদুল্লাহ্ আল মামুন বলেন, ‘এতবড় ভুল তো হওয়ার কথা না। আমি হলফনামা কিছু স্বহস্তে আর কিছু কম্পোজ করেছি। এটা তাহলে হয়ত কম্পোজেই ভুল হয়েছে।’ তবে এ ভুলকে রিটার্নিং অফিসারের ব্যর্থতা বলে দায়ী করে এখন দলের মেয়র প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করা হলে মামলা করার হুমকি দিয়েছেন গফরগাঁওয়ের বিএনপি নেতা মুশফিকুর রহমান। তিনি বলেন, ‘এই ভুলে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল হবে না, বরং ভুল করায় অযোগ্য, অথর্ব রিটার্নিং অফিসারের পদত্যাগ করা উচিত।’ হলফনামায় বিএনপির মেয়র প্রার্থীর এই ভুল ক্ষুদ্র নয় দাবি করে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এসএম ইকবাল হোসেন সুমন বলেন, ‘আমি সোমবার বিষয়টি জানলাম।