১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুয়াকাটায় কেন্দ্রে হামলা, ব্যালট ছিনতাই,বাক্স ভাংচুর

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া ॥ কুয়াকাটা পৌরসভার আট নং ওয়ার্ডের পাঞ্জুপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট চলাকালে শতাধিক লাঠিয়াল বাহিনী হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করেছে। ব্যালট বাক্স ভেঙ্গে ছিনিয়ে নিয়েছে অসংখ্য ব্যালট পেপার। বুধবার সকাল সোয়া নয়টার দিকে এ হামলা-ভাংচুর ও ব্যালট ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। প্রশাসন ওই কেন্দ্রের ভোট গ্রহন বন্ধ করে দিয়েছে। এসময় সন্ত্রাসী হামলায় আহত হয় সহকারী পোলিং অফিসার শাহীন ও হাবিব। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে ২৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়েছে। কাউন্সিলর প্রার্থী আশারাফ সিকদার সমর্থকরা এ হামলা চালায় বলে পুলিশ পরিদর্শক তারিকুল ইসলাম জানিয়েছেন। তবে আশরাফ সমর্থকদের দাবি সরকার মনোনীত মেয়র প্রার্থীর পক্ষে ব্যালট পেটানোতে বাধা দেয়ায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ পাল্টা সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১০ জন জখম হয়েছে। এর মধ্যে সুফিয়ান (৩০), দুলাল (২৮), জলিল (৩৫), খলিল (৩৬), ইয়াসিন (২৮) হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। এছাড়া গুলিবিদ্ধ হাবিব মোল্লা বাইরে চিকিৎসা নিয়েছে বলে বিএনপি নেতারা দাবি করেছেন। এছাড়া কেন্দ্র থেকে এজন্টদের মারধর করে বের করে দেয়াসহ প্রকাশ্যে ব্যালটে সিল দেয়ার অভিযোগ এনে জাপা (এ) মনোনীনত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হাওলাদার নির্বাচন বর্জন করেছেন। এ ছাড়াও কুয়াকাটা বঙ্গবন্ধু মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র ও কুয়াকাটা ইসলামপুর দাখিল মাদ্রাসা কেন্দ্রের বাইরে দুপুরে দুই গ্রুপের কাউন্সিলরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘাতের খবর পাওয়া গেছে। অপরদিকে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী আব্দুল আজিজ মুসল্লী অভিযোগ করেন একমাত্র দুই নম্বর কেন্দ্র ছাড়া সকল কেন্দ্র থেকে তার মনোনীত এজেন্টদের বের করে দেয়া অভিযোগ করেছেন। তবে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল বারেক মোল্লা এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। অপরদিকে কলাপাড়া পৌরসভা নির্বাচনে তিনটি কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে ভোট বাতিলের দাবিতে দুপুরে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে। সরকারি দলের সমর্থকদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করা হয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ