১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ম্যারাডোনাই ছিলেন জোলার অনুপ্রেরণা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ চেলসির কিংবদন্তি ফুটবলার জিয়ানফ্রাঙ্কো জোলা। তবে তার বিকাশ ঘটেছিল নেপোলির জার্সিতে। যে ক্লাবটিতে দুই বছর খেলতে পেরেছিলেন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে। আর তাদের অসাধারণ পারফরম্যান্সের সৌজন্যেই ১৯৮৯-৯০ সালে ইতালিয়ান সিরি’এ লীগের শিরোপা জিতে নেপোলি। সেই জোলাই বর্তমানে কাতারের ক্লাব আল-আরাবির কোচ। তবে ম্যারাডোনার সঙ্গে খেলার সেই দারুণ অনুভূতি এখনও ভুলতে পারেননি সাবেক ইতালিয়ান ফরোয়ার্ড জিয়ানফ্রাঙ্কো জোলা। ৪৯ বছর বয়সী সাবেক এই তারকা ফুটবলার এক সাক্ষাৎকারে জানান আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি ম্যারাডোনাই তার অনুপ্রেরণা।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ম্যারাডোনার সাথে খেলার স্মৃতিগুলো অবশ্যই খুব মধুর। আমার ক্যারিয়ারে তিনিই সম্ভবত সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা রাখা খেলোয়াড়। তার সঙ্গে যখন আমার পরিচয় হয় এরপর অনেক কিছুই শিখেছি। যদিওবা এটা বলা খুব কঠিন এবং বিব্রতকর তারপরও সে কিংবদন্তি ফুটবলার হিসেবে বিবেচিত। কেননা যুগে যুগে গুরুত্বপুর্ণ খেলোয়াড়েরই আবির্ভাব ঘটেছে। তবে ম্যারাডোনা অবশ্যই সেরাদের একজন এবং তার সঙ্গে একত্রে খেলতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত ও রোমাঞ্চিত।’

১৯৮৯ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত নেপোলির জার্সিতে ১০৫ ম্যাচ খেলেছিলেন জোলা। এপর পার্মা থেকে চেলসিতে যোগ দেন তিনি। প্রায় অর্ধযুগেরও বেশি সময় ব্লুজদের জার্সিতেই খেলে যান তিনি। শুধু তাই নয়, ইংল্যান্ডের ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সর্বকালের সেরা ফুটবলারের তালিকাতেও জায়গা করে নেন তিনি। ইউসার্ভের এক জরিপে ইপিএলের সর্বকালের সেরা ফুটবলার হিসেবে প্রথম স্থানে ছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। আর দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে ছিলেন যথাক্রমে ফরাসী ফুটবল তারকা থিয়রি অঁরি ও ইংলিশ ফুটবলার রায়ান গিগস। ইউসার্ভের এই জরিপে সেরা হিসেবে বেছে নেয়ার জন্য মোট ১০ ফুটবলারের নাম নির্বাচিন করা হয়েছিল। এই ফুটবলাররা হলেন- ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, থিয়রি অঁরি, রায়ান গিগস, এরিক ক্যান্টোনা, জিয়ানফ্রাঙ্কো জোলা, ডেনিস বার্গক্যাম্প, স্টিভেন জেরার্ড, এ্যালান সিয়ারার, রয় কিয়ান এবং প্যাটট্রিক ভিয়েরা। জরিপে ইউসার্ভের এক হাজার সাধারণ সদস্য ভোট প্রদান করেন। এতে সর্বকালের সেরা হিসেবে রোনাল্ডো পেয়েছিলেন ২৪ শতাংশ ভোট। অঁরি ১৮ শতাংশ, গিগস ১৩ শতাংশ এবং এরিক ক্যান্টোনা ও অ্যালান সিয়ারার ১২ শতাংশ করে ভোট পেয়েছিলেন।