২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বছরজুড়ে দর্শক সঙ্কটে ছিল মঞ্চনাটক

বছরজুড়ে দর্শক সঙ্কটে ছিল মঞ্চনাটক

সাজু আহমেদ ॥ বাংলাদেশের মঞ্চনাটকে মৌলিক এবং নিজস্ব আঙ্গিক প্রতিষ্ঠা না হওয়া ছাড়াও দর্শক সঙ্কট নিয়ে আরও একটি বছর কাটল। উৎসব এবং নতুন নাটকের মঞ্চায়নের দিন ছাড়া বাকি সময়ে দর্শক সঙ্কটে ভুগেছে নাট্যদলগুলো। এ নিয়ে সংশ্লিষ্টরা আলোচনার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিলেন। বছরজুড়ে কার্যকর কোন উদ্যোগ চোখে পরেনি। মঞ্চনাটকের দলগুলোর নিজস্ব কোন উদ্যোগ তো ছিলই না। বরং ফেডারেশনের নেতারা গত বছর শুধু বুলিই আওড়িয়ে গেছেন। ঢাকা শহরব্যাপী নাট্যমঞ্চ বাড়ানোর কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। এজন্য উদ্যোগ নিতে সরকারকে বোঝানোও সম্ভব হয়নি। যানজটের শহরে শিল্পকলা একাডেমির তিনটি হলনির্ভর নাট্য সংগঠনগুলোর মধ্যে নতুন ও অপেক্ষাকৃত নতুন দলগুলোর জন্য ছিল ২০১৫ সালটি অত্যন্ত কষ্টের। তবে এ বছর বেশ কয়েকটি নাট্যোৎসব হয়েছে। শিল্প কলায় গঙ্গা যমুনা নাট্যোৎসব, যশোর বিবর্তনের উৎসব, বরিশালের নাট্যোৎসব, চট্টগ্রামের তির্যকের ৪০ বছর পূর্তি উৎসব এবং সর্বশেষ সাভারে সাংসদ নাট্যোৎসব ছিল এবারের অন্যতম আলোচনার বিষয়। তবে প্রতিবছরের মতো ২০১৫ সালেও ঢাকার মঞ্চে বড় নাট্যদলগুলো নতুন কোন নাটক মঞ্চে আনেনি। পুরাতন নাটক নিয়েই ব্যস্ত ছিল দলগুলো। কোন কোন দল দেশের বাইরে নাটক মঞ্চায়ন করে দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন। তবে নানা সঙ্কট সত্ত্বেও বেশ কয়েকটি নাট্যদল নতুন নাটক মঞ্চে এনেছে। তবে উদ্বোধনী মঞ্চায়নের দিন ছাড়া তারাও দর্শক সঙ্কটের কবলে পরেছেন। এ নিয়ে তাদের আক্ষেপ করতেও শোনা গেছে। এছাড়া এ বছর ‘বাতিঘর’, ‘কিচ্ছাকাহিনী’, ‘ম্যাড থিয়েটার’ এবং সর্বশেষ ‘ড্রামাশপ’ নামে নতুন তিনটি নাট্যদল যাত্রা শুরু করেছে।

ভিশন থিয়েটারের ‘গালিভারের সফর’ : এ বছর মঞ্চে প্রথম নতুন নাটক নিয়ে আসে ভিশন থিয়েটার। গত ২৫ জানুয়ারি রোববার সন্ধ্যা ৬টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে ভিশন থিয়েটারের নবম প্রযোজনা ‘গালিভারের সফর’-এর উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। আবুল মনসুর আহমদের গল্প অবলম্বনে নাটকটি লিখেছেন গোলাম সারোয়ার। নির্দেশনা দিয়েছেন সুপ্ত সারোয়ার। গালিভারের সফর নাটকে শিক্ষা সচেতনতা এবং পাশ্চাত্য সভ্যতার সঙ্গে নিজস্ব গোঁড়ামিকে উপজীব্য করে নাটকীয়ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

তুরঙ্গমী ডান্স থিয়েটারের ‘ওয়াটারনেস’ : এ বছর ২১ জানুয়ারি তুরঙ্গমী রেপার্টরি ডান্স থিয়েটারের আয়োজনে জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে হয় বাংলাদেশের প্রথম ডান্স থিয়েটার ‘ওয়াটারনেস’। নৃত্যনাট্যটি লিখেছেন ভারতের ধীমান ভট্টাচার্য। নৃত্য ভাবনা, পরিকল্পনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন পূজা সেনগুপ্ত। জল ও নারীর সম্পর্ক নিয়ে গবেষণাধর্মী এই প্রযোজনাটি বাংলা ও ইংরেজী ভাষায় তৈরি। নৃত্যনাট্যটির পোশাক পরিকল্পনা উর্মী হাজরা এবং সঙ্গীত পরিকল্পনা করেছেন সুমন সরকার।

থিয়েটার ফোকসের ‘যমুনা’ : বিলেতের অক্সফোর্ড শহরে নাটকের দল থিয়েটার ফোকস। তারা দ্বিতীয় প্রযোজনা ‘যমুনা’ নিয়ে ঢাকায় আসে এ বছর। নাটকটির প্রথম দুটি প্রদর্শনী হয় ৯ ও ১০ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটম-লে। এ ছাড়া বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে ১১ ও ১২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় নাটকটি আবার মঞ্চায়িত হয়। নাটকটি রচনা করেছেন সেলিনা শেলী। নির্দেশনা দিয়েছেন মোহাম্মদ আলী হায়দার । নাটকটি ইংরেজী ভাষায় মঞ্চায়িত হয়।

বাতিঘরের ‘ঊর্ণাজাল’ : এ বছরের ৪ মার্চ এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয় বাতিঘরের ‘ঊর্ণাজাল’নাটকের। এর নাট্যরূপ ও নির্দেশনা দিয়েছেন তরুণ নির্দেশক বাকার বকুল। এ নাটকটিও ঢাকার দর্শকমহলে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে।

কিস্সা কাহিনীর ‘সুখ চাঁন্দের মোড়’ : শরীর অঙ্কন শিল্পসমৃদ্ধ নাটক ‘সুখ চাঁন্দের মোড়’। ঢাকার মঞ্চে এ বছর মঞ্চায়িত হয় নতুন এ নাটকটি। নতুন দল কিস্সা কাহিনী নতুন ঘরানার মঞ্চনাটক ‘সুখ চাঁন্দের মোড়’। এ বছর ২৭ জুন শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার মিলনায়তনে নাটকটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়। নাটকটি রচনা করেছেন আসাদুজ্জামান দুলাল এবং নির্দশনা দিয়েছেন মো. জসিম উদ্দিন।

শিল্পকলা একাডেমির ‘মুল্লুক’ : বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ‘মূল্যবোধের নাটক’ কর্মসূচির আওতায় একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর ভাবনা ও বাকার বকুলের রচনা ও নির্দেশনায় মঞ্চে আসে ঢাকা শিল্পকলা একাডেমির প্রযোজনা ‘মুল্লক’। ৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় মিনেটে একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার স্টুডিও থিয়েটার হলে নাটকটির প্রথম মঞ্চায়ন হয়।

নাট্যতীর্থের ‘কঙ্কাল’ : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিখ্যাত ছোটগল্প ‘কঙ্কাল’ মঞ্চনাটক হিসেবে এ বছর দর্শকদের সামনে হাজির করে নাট্যতীর্থ। ১২ সেপ্টেম্বর শিল্পকলা একাডেমিতে নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। নাটকটি রচনা করেছেন রবিউল আলম, নির্দেশনা দিয়েছেন তপন হাফিজ।

পদাতিকের ‘কাল রাত্রি’ : শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে ৬ নবেম্বর উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয় পদাতিক নাট্য সংসদের ৩৮তম প্রযোজনা মুক্তিযুদ্ধের নাটক ‘কাল রাত্রি’। লামিসা শিরীন হোসাইনের ‘লোন সার্ভাইভার’গল্প অবলম্বনে নাট্যরূপ দিয়েছেন ড. তানভীর আহমেদ সিডনী।

মহাকালের ‘নীলাখ্যান’: জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘সাপুড়ে’গল্প অবলম্বনে ‘নীলাখ্যান’ নামে এ বছর নতুন নাটক নিয়ে আসে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়। গত ১৪ আগস্ট জাতীয় নাট্যশালার পরীক্ষণ থিয়েটার হলে নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। সাপুড়ে গল্পের নাট্যরূপ দিয়েছেন আনন জামান, নির্দেশনা দিয়েছেন ইউসুফ হাসান অর্ক।

নাট্যকেন্দ্রের ‘বন্দুকযুদ্ধ’ ও ‘গাধারহাট’ : এ বছর মঞ্চে দুটি নতুন নাটক মঞ্চে নিয়ে আসে নাট্যকেন্দ্র। দুই মিসরীয় নাট্যকার আলফ্রেড ফারাগ এবং তৌফিক আল হাকিম রচিত দুটি নাটক যথাক্রমে ‘দ্য ট্র্যাপ’-এর বাংলা রূপ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ এবং ‘দ্য ডাংকি মার্কেট’-এর বাংলা রূপ ‘গাধারহাট’ নামে দুটি নাটক শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার স্টুডিও থিয়েটার মিলনায়তনে ১৭ সেপ্টেম্বর উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। নাটক দুটির রূপান্তর ও নির্দেশনা নাট্যব্যক্তিত্ব তারিক আনাম খান।

জাগরণী থিয়েটারের ‘চিত্ত বিনিময়’ : এ বছর সাভারের জাগরণী থিয়েটার তাদের ১৪তম প্রযোজনা হিসেবে মঞ্চে নিয়ে আসে নাটক ‘চিত্ত বিনিময়’। ২৯ সেপটেম্বর মঙ্গলবার শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। রাধারমণ ঘোষের রচনায় নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন বৈদ্যনাথ অধিকারী।

নাগরিক নাট্যাঙ্গনের ‘গহর বাদশা ও বানেছা পরী’ : এ বছর মঞ্চে আসে নাগরিক নাট্যাঙ্গনের নতুন প্রযোজনা ‘গহর বাদশা ও বানেছা পরী’। গত ১৭ নবেম্বর শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয় এই নাটকের। নির্দেশনা দিয়েছেন হৃদি হক।

ম্যাড থেটারের ‘নদ্দিউ নতিম’ : ঢাকার মঞ্চে নবাগত নাট্যদল ম্যাড থিয়েটারের প্রথম প্রযোজনা ‘নদ্দিউ নতিম’ নাটকটি ৩০ অক্টোবর শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। হুমায়ূন আহমেদের মূল কাহিনী থেকে নাটকটির রূপান্তর ও নির্দেশনা দিয়েছেন আসাদুল ইসলাম । নাটকটি ঢাকার মঞ্চে ব্যাপক সমাদৃত হয়।