২০ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উৎপাদন ক্ষমতা বাড়াচ্ছে অলিম্পিক ইন্ড্রাস্টিজ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ উৎপাদন ক্ষমতা বাড়াচ্ছে। কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর অংশ হিসেবে কোম্পানিটি কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসই সূত্রে আরও জানা গেছে, উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর অংশ হিসেবে কোম্পানিটির মদনপুরের ফ্যাক্টরির প্রাঙ্গণে ৫২ হাজার বর্গফুটের একটি নতুন কারখানার নির্মাণ কাজ শেষ করেছে। অল্প সময়ের মধ্যে ওই কারখানায় উৎপাদন কাজ শুরু করবে।

এছাড়া, ললাতি বিস্কুট ফ্যাক্টরি প্রাঙ্গণে ২ লাখ বর্গফুটের নতুন ভবন তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানি। এর জন্য আনুমানিক ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৪ কোটি ৭৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা। কোম্পানি নিজস্ব তহবিল থেকে এই অর্থ সরবরাহ করবে। ফ্যাক্টরির সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় এই ভবনে একটি নতুন মেশিন স্থাপনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে এই ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হলে কাঁচামাল এবং ফ্যাক্টরির উৎপাদিত পণ্য সংরক্ষণ সুবিধাও বাড়বে। আগামী ৩১ জানুয়ারিতে কোম্পানিটির বলপয়েন্ট কলম, সিরিয়াল বারস এবং চাটনির উৎপাদন বন্ধ করা হবে।

একটি নতুন বিস্কুট তৈরির সব সরঞ্চাম এবং প্যাকিং মেশিনারিজ ব্যাংক ঋণের সহায়তায় ইতালি এবং ভারত থেকে আমাদানি করা হবে। এর জন্য আনুমানিক ব্যয় ধরা হয়েছে ১০ কোটি ৪০ লাখ টাকা। কোম্পানির ৮ম বিস্কুট লাইন থেকে বার্ষিক ৯ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন বিস্কুট উৎপাদন করা হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে। এই নতুন বিস্কুট তৈরি এবং এর বাজার সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করবে কোম্পানি।

চীন থেকে পিইটি শিট এবং ট্রে তৈরির একটি ইউনিট আমদানির জন্য ব্যাংক ঋণের সহায়তায় ৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ের বাজেট করেছে অলিম্পিক। এই ইউনিট থেকে বার্ষিক ১ কোটি ট্রে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কোম্পানি। এতে কোম্পানির রপ্তানি ব্যয় কমবে বলে আশা করা হচ্ছে।