১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

১৪ প্রতিষ্ঠানকে অনুদান দিল কেন্দ্রিয় ব্যাংক

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আর্থিক অন্তর্ভূক্তি ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের জন্য ১৪ টি প্রতিষ্ঠানকে অনুদান দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বৃহস্পতিবার এ চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে ‘বাংলাদেশ ব্যংক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও সামাজিক দায়বদ্ধতা তহবিল’ হতে প্রতিষ্ঠানগুলোকে ৩ কোটি ৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকার সুপারিশের বিপরীতে দুই কোটি ৩৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকার চেক দেয়া হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- বাংলাদেশ পৌষ ২৫ লাখ, অতীশ দীপঙ্কর গবেষণা পরিষদ ১০ লাখ, ওয়ান ডিগ্রি ইনিশিয়েটিভ ২০ লাখ, বাংলাদেশ অ্যারচারী ফেডারেশন ২০ লাখ, ই এডুকেশন বাংলাদেশ ২০ লাখ, সাপ্তাহিক শিক্ষা বিচিত্রা এবং এ্যাসোসিয়েশন ফর রুরাল ডেভেলপমেন্ট এন্ড স্টাডিজ(এআরডিএস) ২০ লাখ, স্যার পি জে হার্টগ ইন্টারন্যাশনাল হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ২৮ লাখ, বীর মুক্তিযোদ্ধা বিদ্যুৎ চৌধুরী ফাউন্ডেশন ১০ লাখ, রামকৃষ্ণ মিশন ১৫ লাখ টাকা, বাংলাদেশ থ্যালাসিমিয়া হাসপাতাল ২০ লাখ, অন্বেষণ ২০ লাখ, বস ৯ লাখ ৫২ হাজার, এসড ৭ রাখ ৩২ হাজার এবং উত্তরা ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম সোসাইটি ১৬ লাখ ৫ হাজার টাকা।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর বলেন, গত কয়েক বছর ধরে একটি মানবিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা দাড় করাবার চেষ্টা করেছি। আমি লক্ষ করেছি, সামাজিক দায়বদ্ধতার জন্য যে আহ্বান জানানো হয়েছিল তাতে প্রায় সব ব্যাংকগুলো সাড়া দিয়েছে। আমরাও সেই দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে আমরাও কিছু কাজ করার তাগিদ অনুভব করি। যার ফসল এই বাংলাদেশ ব্যাংক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও সামাজিক দায়বদ্ধতা তহবিল।

গভর্নর বলেন, ছয় বছর আগে মাত্র ৫০ হাজার টাকার ফান্ড থাকলেও বর্তমানে তা ১০ কোটিতে উন্নীত করেছি। এখন একটি নীতিমালার আলোকে এ ফান্ডের কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এ নীতিমালায় বলা হয়েছে, বিতরণের এক তৃতীয়াংশ শিক্ষাখাতে ব্যয় করতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমরা দেশের ভেতরে নয়, নেপালে ভূমিকম্পের সময় আমরা ব্যংকগুলোকে সহায়তার হাত বাড়তে বলি। তারা যার যতটুকু সামর্থ তাই দিয়েই তারা সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। সুতরাং বলতে পারি আমাদের ব্যাংকগুলো অনেক বেশি মানবিক। ড. আতিউর রহমান বলেন, মানবিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকেই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যে জায়গায় সরকারি বা বেসরকারিভাবেবা অন্য ব্যাংকগুলো পৌছতে পারছে না, সেসব জায়গায় আমরা পৌছতে চাচ্ছি এসব প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে। আমাদের এ আয়োজন দিয়ে একটি উদাহরণ সৃষ্টি করছি। কারণ অন্যান্য যেসব দায়বদ্ধ প্রতিষ্ঠান বা কর্পোরেট হাউসগুলো রয়েছে তারাও যেন দেশের ভাগ্যবঞ্চিত মানুষকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি গভর্নর সুধাংশু কুমার সুর চৌধুরী, মহাব্যবস্থাপক মনোজ কুমার বিশ্বাস, নির্বাহী পরিচালক মোহম্মদ নওশাদ আলী চৌধুরী ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নরবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন মনোজ কুমার বিশ্বাস।