২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চৌমুহনীর ১০ কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করার প্রতিবাদ

নিজস্ব সংবাদদাতা, নোয়াখালী, ৩১ ডিসেম্বর ॥ কোন ধরনের সহিংস ঘটনা ছাড়াই চৌমুহনী পৌরসভার ১০ কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আক্তার হোসেন ফয়সাল। তিনি বলেন, কোন প্রকার সহিংস ঘটনা, দাঙ্গা-হাঙ্গামা, সংঘর্ষ বা হতাহত বা কোন গ্রেফতারের ঘটনাও ঘটেনি। তবুও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ স্থগিত করে কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার দুপুরে চৌমুহনী পৌরসভার পাবলিক হল মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এসব কথা বলেন। একই সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবাদ জানিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কাউন্সিলররাও।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চৌমুহনী পৌরসভা নির্বাচনে আ’লীগের মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সাল। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম তাজু, ইসমাইল হোসেন বাবলু, ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেন, ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী খোকন ঘোষ, ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন দেলু, প্রার্থী নুরুল ইসলাম বাবুল, ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মনসুর আহমদ রিপন প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে আক্তার হোসেন ফয়সাল স্থগিত হওয়া কেন্দ্রগুলোর ভোট গণনা করে দ্রুত ফলাফল ঘোষণা করার দাবি জানিয়ে আরও বলেন, রিটার্নিং অফিসার এবং প্রিসাইডিং অফিসাররা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে হঠকারী সিন্ধান্ত নিয়ে কেন্দ্রগুলোর ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছেন। এজন্য তিনি ইসির কাছে এর সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, চৌমুহনী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী আক্তার হোসেন ফয়সাল নৌকা প্রতীক নিয়ে ১০টি কেন্দ্রের ফলাফলে ৭ হাজার ৩২৭ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী জহির উদ্দিন হারুন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ৭৯৩ ভোট পেয়েছেন। এই পৌরসভার ২০ কেন্দ্রের মধ্যে অনিয়ম ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগে ১০ কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।