১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভোলায় ফের নির্বাচন দাবি

  • জেলা বিএনপির সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব সংবাদদাতা, ভোলা, ৩১ ডিসেম্বর ॥ প্রশাসনের সহযোগিতায় প্রভাব খাটিয়ে কেন্দ্র দখলসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে ভোলার তিন পৌরসভা নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি করেছে বিএনপি। বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোলার কালীনাথ রায় বাজারের দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর ও ভোলা পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হারুন অর রশিদ ট্রুম্যান এসব কথা বলেন।

লিখিত বক্তব্যে বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেন, নির্বাচনের আগেই আচরণবিধি লঙ্ঘন নিয়ে আমরা নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করেছি কিন্তু কোন প্রতিকার পাইনি। বিএনপির প্রার্থী ভোলার পুলিশ সুপারের সঙ্গে একাধিকবার সাক্ষাতের চেষ্টা করলেও তিনি সময় দেননি। নির্বাচনে প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দিয়ে বহিরাগতদের দিয়ে ভোট দেয়া হয় এবং প্রার্থীর এজেন্টদের মারধর করে বের করে দেয়ার অভিযোগ করে নতুন নির্বাচনের দাবি করা হয়। এছাড়া ভোলার দৌলতখান ও বোরহানউদ্দিন পৌরসভা নির্বাচনেও একই ঘটনা ঘটেছে বলে তারা উল্লেখ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিনুল ইসলাম খানসহ বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা। এ বিষয়ে ভোলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, বিএনপির প্রার্থী হারুন অর রশিদ ট্রুম্যান যে বক্তব্য দিয়েছেন তা মিথ্যা। কারণ তিনি পুলিশ সুপারের সঙ্গে নির্বাচনের আগে ৩০ মিনিট বৈঠক করেন। এছাড়া নির্বাচনের দিন বিএনপির পক্ষ থেকে কোন অভিযোগও পাননি। বিএনপির এ বক্তব্য পুলিশ সুপার প্রত্যাখ্যান করেন। তবে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মবিন টুলু অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোট দিয়েছে।

ঠাকুরগাঁওয়ে মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও, ৩১ ডিসেম্বর ॥ পৌর নির্বাচনে নেতা-কর্মীদের অসহযোগিতার অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তহমিনা আখতার মোল্লার সর্মথকরা।

দুপুর ১২টায় জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবার একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়।

পরে মেয়র প্রার্থী তহমিনা আখতার মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতাকর্মীর অসহযোগিতা করার কারণে পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পিছিয়ে রয়েছে। ওই নেতা কর্মীরা বঙ্গবন্ধু ও নৌকা প্রতীককে অবমাননা করেছে। তিনি আগামী নির্বাচনে সবার সহযোগিতা কামনা করেন। উল্লেখ্য, হামলা, ব্যালট পেপার ছিনতাই আর অবৈধভাবে সিল মারার অভিযোগে ঠাকুরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে ৩টি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করেছে রিটার্নিং অফিসার। ফলে এ পৌরসভার ফলাফল স্থগিত রয়েছে।