১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দ্বিতীয় বিমানবাহী রণতরী নির্মাণ করছে চীন

চীন তার দ্বিতীয় বিমানবাহী রণতরী নির্মাণ করছে। কিন্তু এ যুদ্ধজাহাজটি সম্পূর্ণভাবে স্থানীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হচ্ছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ কথা বলেছে। খবর বিবিসি অনলাইনের।

মন্ত্রণালয় বলেছে, ৫০ হাজার টনের এ জাহাজটি ডালিয়ান বন্দরে নির্মাণ করা হচ্ছে। পূর্ব ও দক্ষিণ চীন সাগরে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে চীন তার নৌশক্তি সম্প্রসারণ করছে। চীনের প্রথম বিমানবাহী জাহাজ লিয়াওনিং হচ্ছে সোভিয়েত-নির্মিত পুরনো একটি জাহাজ। এটি তৈরি করা হয় ২৫ বছরের বেশি সময় আগে। জাহাজটি বিস্তৃতভাবে মেরামত করে ২০১২ এর ওপর কর্মভার অর্পণ করা হয়। সংবাদদাতারা বলেছেন, সামরিক কর্মকর্তাদের মধ্যে কয়েক মাস ধরে গুঞ্জন চলার পর জাহাজটির নির্মাণ কাজের নিশ্চয়তা প্রকাশ করলেন কর্মকর্তারা। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন তার প্রতিরক্ষা ব্যয় বৃদ্ধি করায় প্রতিবেশী দেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে। ইয়াং বলেন, বিমানবাহী জাহাজটি চীনের জে-ফিফটিন এয়ারক্র্যাফটসহ অন্যান্য বিমান পরিবহন করবে। বিমানবাহী জাহাজটি কবে নাগাদ সার্ভিস শুরু করবে সে ব্যাপারে কিছুই বলবেন না বলে তিনি জানান। তবে তিনি বলেন, তার অনেকখানি নির্ভর করে নক্সা প্রক্রিয়ায় অগ্রগতির ওপর।

চীনের নৌবাহিনীর বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, দক্ষিণ চীনসাগরে উত্তেজনার কারণে তাদের বিশেষভাবে প্রয়োজন হয়ে পড়েছে দ্বিতীয় বিমানবাহী জাহাজের। চীন দক্ষিণ চীন সাগরের প্রায় পুরোটা দাবি করে আসছে।

অন্যদিকে, ব্রুনাই, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন্স, তাইওয়ান ও ভিয়েতনামের দাবি রয়েছে এ সাগরে। এ সাগরে রয়েছে বিপুল পরিমাণ তেল ও গ্যাসের ভা-ার।