২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ওরা সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়ে লেখে জয় বাংলা

একাত্তরে পাকসেনাদের অত্যাধুনিক স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের সামনে শত্রুদের পরাস্ত করা প্রাণবন্ত নওজোয়ান ইউসুফ আতিক (৬৩) এখন পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তিনি কোমরে গ্রেডেন ও স্টেনগান হাতে ঝাঁপিয়ে পড়তেন শত্রুর মোকাবেলায়। যুদ্ধের ডামাডোলের মধ্যে ২৮ অক্টোবর তিনি ধরা পড়েন আলবদর বাহিনীর হাতে। এরপর স্বাধীনতাবিরোধীরা তাঁর ওপর নির্মম নির্যাতন চালিয়ে দুই পা ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়। শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়ে তারা লেখে ‘জয় বাংলা’। এরপর তাকে মৃত ভেবে ক্যাম্পের বাইরে গর্তের ভেতরে ফেলে দেয়। পরে তিনি বেঁচে গেলেও পা দুটি অচল হয়ে গেছে। শেষপর্যন্ত তাঁকে পঙ্গুত্ববরণ করতে হয়। বর্তমানে তিনি কিশোরগঞ্জ শহরের জামিয়া রোডে নিজ বাড়িতে সীমাহীন কষ্টে চোখের জল ফেলে মৃত্যুর প্রহর গুনছেন। যন্ত্রণাদায়ক সেসব স্মৃতি মনে করে প্রায়ই দীর্ঘশ্বাস ফেলেন।

আতিক আক্ষেপ করে বলেন, অনেক রাজাকার এ দেশে রাষ্ট্রীয় নানা সুবিধা পাচ্ছে। অথচ মুক্তিযুদ্ধে পঙ্গুত্ববরণ করে আজও কিছুই পাইনি। জীবনসায়াহ্নে এসে মুক্তিযুদ্ধের সনদ না পেয়ে চরম হতাশায় রয়েছেন তিনি।

Ñমাজহার মান্না, কিশোরগঞ্জ থেকে

নির্বাচিত সংবাদ