১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বর্ষসেরা কোহলি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন দ্য ইন্ডিয়া-বিসিসিআই) ২০১৫ সালের বর্ষসেরা হয়েছেন দেশটির টেস্ট অধিনায়ক বিরাট কেহলি। প্রমীলা বিভাগের সেরা নির্বাচিত হয়েছেন ভারতীয় মহিলা দলের অধিনায়ক মিতালি রাজ। মঙ্গলবার এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। ব্যাট হাতে খুব একটা সফল না হলেও সাদা পোশাকের অধিনায়ক হিসেবে শুরুতেই অসাধারণ একটি বছর পার করেন কোহলি। তার নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারায় ভারত। মূলত এ কারণেই সেরা হিসেবে ক্রেজি কোহলিকে বেছে নেয় বিসিসিআই। আর প্রমীলা বিভাগে ব্যাট হাতে-নেতৃত্বে যথারীতি দুরন্ত মিতালি। ভারতের প্রথম ও বিশ্বের মাত্র দ্বিতীয় নারী ক্রিকেটার হিসেবে পাঁচ হাজারি ক্লাবে নাম লিখিয়েছেন তিনি। একই অনুষ্ঠানে সাবেক ভারতীয় উইকেটরক্ষক সৈয়দ কিরমানিকে ‘সিকে নাইডু লাইফটাইম এ্যাওয়ার্ডে’ ভূষিত করা হবে।

উইলোবাজিতে কিছুটা থিুত হলেও টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে ভারতকে অসাধারণ সাফল্য এনে দিয়েছেন তরুণ কোহলি। স্টিভেন স্মিথ-জো রুটরা যেখানে সদ্যবিদায়ী ২০১৫ সালে ১৩০০-১৪০০ করে রান পেয়েছেন সেখানে ৯ টেস্টে ৬৪০ রান কোহলির পাশে বেমানানই। ২০ ওয়ানডেতে ৬২৩ ও ২ টি২০তে তার সংগ্রহ ৪৪। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে অস্ট্রেলিয়া সফরে সিরিজের মধ্যপথে হুট করেই টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানান মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারতের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের সময়টা মোটেই ভাল যাচ্ছিল না। ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ায় ভরাডুবি হয় ‘ক্যাপ্টেন কুলের’। অনুমিতভাবেই দায়িত্ব বর্তায় কোহলির কাঁধে। আবেগপ্রবণ ভারতীয়দের টেস্টের ভার বওয়া সহজ নয়। অথচ শুরু থেকেই চমক দেখান তিনি। টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে বাংলদেশ সফর প্রথম হলেও শ্রীলঙ্কা সফরটা ছিল সত্যিকারের চ্যালেঞ্জ। সেখানে উতরে গেছেন।

দীর্ঘ ২২ বছর পর শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয় করে ভারত। অনেকে বলছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজটা হবে সত্যিকারের অগ্নিপরীক্ষা। সেখানেও লেটার মার্কস নিয়ে পাস কোহলি। ঘরের মাটিতে র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর দল ধরাশায়ী ৩-০ ব্যবধানে। টেস্টে যে দলটি ব্যর্থতায় পর্যবসিত, সেই তাদের এভাবে ঘুরে দাঁড়ানো বিস্ময়করা। কোহলির নেতৃত্বের প্রশংসায় পঞ্চমুখ দেশটির সাবেকরা। ব্যাট হাতে বছরটা মিশ্র গেলেও আধুনিক ভারতের অন্যতমসেরা ব্যাটসম্যান কোহলি। তাকে ভাবা হয় গ্রেট শচীন টেন্ডুলকরের যোগ্য উত্তরসূরি। ১৬৬ ওয়ানডেতে কোহলির ৫০.৬০ গড়ে ৬৮৩১ রানই তার হয়ে সাক্ষী দেয়। মাত্র ২৭ বছর বয়সে টেস্ট-ওয়ানডে হাঁকিয়েছেন ৩৪ সেঞ্চুরি! টেস্টে ১১, ওয়ানডেতে ২৩। কোহলি আসলে এক প্রকৃতিজাত প্রতিভার নাম। যার হাত ধরে ফের টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ফেরার স্বপ্ন দেখছে ভারত।