২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দেশে র্আথকি প্রতষ্ঠিান বড়েে হয়ছেে দ্বগিুণরে বশেি

র্অথনতৈকি রপর্িোটার ॥ দশ বছররে ব্যবধানে দশেে র্অথনতৈকি র্কমকা-রে পরধিি দ্বগিুণরে চয়েে বশেি বড়েছে।ে ২০১৩ সালে শুমারকিালীন মোট র্অথনতৈকি ইউনটিরে সংখ্যা দাঁড়য়িছেে ৭৮ লাখ ১৮ হাজার ৫৬৫টতি,ে যা ২০০১ এবং ২০০৩ সালে পরচিালতি শুমারতিে ছলি মাত্র ৩৭ লাখ ৮ হাজার ১৪৪ট।ি ২০১৩ র্পযন্ত র্অথনতৈকি ইউনটিরে বৃদ্ধরি হার দাঁড়য়িছেে ১১০ দশমকি ৮৫ ভাগ। এছাড়া ১৯৮৬ সালে স্থায়ী প্রতষ্ঠিানরে সংখ্যা ছলি ১৫ লাখ ৬১ হাজার ৯২৬টি এবং ২০১৩ সালে তা বৃদ্ধি পয়েে দাঁড়য়িছেে ৪৫ লাখ ১৪ হাজার ৯১টতি।ে বাংলাদশে পরসিংখ্যান ব্যুরো (ববিএিস) পরচিালতি এ শুমাররি চূড়ান্ত প্রতবিদেন প্রকাশ করা হয়ছেে বৃহস্পতবিার। রাজধানীর আগারগাঁওয়রে পরসিংখ্যান ভবনে এটি প্রকাশ করনে পরকিল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় বশিষে অতথিি ছলিনে র্অথ ও পরকিল্পনা প্রতমিন্ত্রী এমএ মান্নান, র্অথনীতবিদি ওয়াহদি উদ্দীন মাহমুদ ও সাবকে তত্ত্বাবধায়ক সরকাররে উপদষ্টো ড. হোসনে জল্লিুর রহমান। সভাপতত্বি করনে পরসিংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বভিাগরে সচবি কানজি ফাতমো এনডসি।ি বক্তব্য রাখনে বাংলাদশে পরসিংখ্যান ব্যুরোর মহাপরচিালক মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াজদে এবং মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করনে র্অথনতেকি শুমারি প্রকল্পরে পরচিালক দলিদার হোসনে।

প্রতবিদেন র্পযালোচনা করে দখো যায়, শহরে মোট র্আথকি প্রতষ্ঠিানরে সংখ্যা হচ্ছে ২২ লাখ ২৯ হাজার ৫৪৬ট।ি এর মধ্যে স্থায়ী প্রতষ্ঠিান ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৬৩২ট,ি অস্থায়ী প্রতষ্ঠিান দুই লাখ পাঁচ হাজার ৯১০ট।ি গ্রামে মোট র্আথকি প্রতষ্ঠিানরে সংখ্যা ২৯ লাখ ৩৬ হাজার ৪৫৯ট,ি অস্থায়ী প্রতষ্ঠিান দুই লাখ ৭৬ হাজার ৯৯৩ট।ি প্রতবদেনে বলা হয়ছেে খানাভত্তিকি (পরবিার) র্অথনতৈকি র্কমকা-রে দ্রুত বস্তিার লাভ করছ।ে ২০১৩ সালে খানাভত্তিকি র্অথনতৈকি র্কমকা-ে খানার সংখ্যা দাঁড়য়িছেে ২৮ লাখ ২১ হাজার ৫৭১ট,ি যা ২০০১ ও ২০০৩ সালে ছলি মাত্র তনি লাখ ৮১ হাজার ৫৫ট।ি অন্যদকিে ২০১৩ সালে শহরে পরবিারভত্তিকি র্অথনতৈকি ইউনটিরে সংখ্যা দাঁড়য়িছেে চার লাখ ৪৬ হাজার চারটি এবং গ্রামে পরবিারভত্তিকি র্আথকি ইউনটি হচ্ছে ২৩ লাখ ৭৫ হাজার ৫৬৭ট।ি

প্রধান অতথিরি বক্তবে পরকিল্পনামন্ত্রী বলনে, আমাদরে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শল্পিকে আরও বশেি সহযোগতিা দয়ো দরকার। তাছাড়া হাওড় অঞ্চলসহ সমাজরে পছিয়িে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে আরও বশেি প্রকল্প হাতে নতিে হব।ে র্অথ ও পরকিল্পনা প্রতমিন্ত্রী এম এ মান্নান বলনে, প্রতপিদে পরসিংখ্যান বা তথ্য আমাদরে কাজে লাগছ।ে আমার ভয় হচ্ছে আগামী ১০-১২ বছর আমরা মালয়শেয়িা বা ব্রাজলিরে মতো জায়গায় যাব এবং তারপর আবার প্রবৃদ্ধি থমেে যাবে কনিা। তনিি বলনে, বাংলাদশে গ্রাম ও শহররে র্পাথক্য এখন নইে। খুব শীঘ্রই নাগরকি ও গ্রামীণ যটেুকু র্পাথক্য আছে তা মুছে যাব।ে আমরা প্রতশ্রিুতবিদ্ধ, স্বচ্ছতা ও সততার সঙ্গে কাজ করার এবং সবাইকে সঙ্গে নয়িে টমি হসিবেে কাজ করা।

বশিষ্টি র্অথনীতবিদি প্রফসের ড. ওয়াহদি উদ্দনি মাহমুদ বলনে, এ প্রতবিদেন থকেে বাংলাদশেরে র্অথনীতরি ডায়নামজিম স্পষ্ট। দশেরে র্অথনতৈকি শক্তি যে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শল্পি এটা পরষ্কিার। এবারে দখো যাচ্ছে গ্রাম মানইে কৃষি কাজ নয়। এর মানে অন্য কছিু। গ্রামীণ খাতে উন্নয়ন হচ্ছ।ে কৃষবিহর্ভিূত কাজ গ্রাম থকেে শহরে সব জায়গায় ছড়য়িে পড়ছে এবং ধীরে ধীরে তা বাড়ছ।ে তনিি বলনে, গ্রামীণ পরবিারগুলো শুধু কৃষইি নয়, মাল্টপিুল কাজরে সঙ্গে যুক্ত। এটা আগে ছলি না, এখন হচ্ছ।ে

গ্রাম শহররে র্অথনতৈকি বভিাজন অনকে কমে গছে।ে আগামীতে বাংলাদশেরে ব্রান্ডংি হচ্ছ,ে যে প্রবৃদ্ধি হবে তা সবাইকে নয়িইে হব।ে ড. হোসনে জল্লিুর রহমান বলনে, বাংলাদশেরে র্অথনীতরি স্বস্তরি জায়গা হচ্ছে সক্ষমতা র্অজন। যা ছোট ছোট র্অথনতৈকি ইউনটিরে বকিাশরে কারণে সম্ভব হয়ছে।ে ফলে বশ্বৈকি ধাক্কার কারণওে র্অথনীততিে কোন সমস্যা হচ্ছে না। এ জন্য এসএমইর সংজ্ঞা পরর্বিতন করে এসব ছোট ইউনটিকে সহযোগতিা করা উচতি।

এই মাত্রা পাওয়া