১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অধ্যাপক কবীর চৌধুরীর ৯৪তম জন্মদিন আগামীকাল

অনলাইন ডেস্ক ॥ নাগরিক আন্দোলন ও প্রগতিশীল আন্দোলনের প্রয়াত নেতা জাতীয় অধ্যাপক কবীর চৌধুরীর ৯৪তম জন্মদিন আগামীকাল ৯ ফেব্রুয়ারি । এ উপলক্ষে নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। আগামিকাল সকাল ৮টায় মিরপুরে অধ্যাপক কবীর চৌধুরীর কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হবে।

১৯৪৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজী সাহিত্যে অনার্সে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম এবং পরের বছর একই বিষয়ে এমএ পরীক্ষায়ও প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান লাভ করেন তিনি। অসম্ভব মেধাবী এ শিক্ষাবিদকে সম্মান জানাতে ১৯৯৮ সালে তাঁকে ‘জাতীয় অধ্যাপক’ করা হয়। ২০১০ সালে জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবেও গুরুদায়িত্ব পালন করেন তিনি। আমৃত্যু কবীর চৌধুরী নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন শিক্ষা, সাহিত্য, আর প্রগতিশীল বাংলাদেশ গড়ে তোলার সামাজিক আন্দোলনে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে গড়ে ওঠা নাগরিক আন্দোলনেও রাখেন অনন্য ভূমিকা। গঠন করেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি।

শতাধিক গ্রন্থের লেখক, অনুবাদক অধ্যাপক কবীর চৌধুরী স্বাধীনতা পদক, একুশে পদক, বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারসহ বহু সম্মাননায় ভূষিত হন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি বাংলা একাডেমির সভাপতি পদে আসীন ছিলেন। বরেণ্য এ শিক্ষাবিদ ২০১১ সালের ১১ ডিসেম্বর নয়াপল্টনের নিজ বাসভবনে মারা যান।

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি প্রতিবছরের মতো এবারও কবীর চৌধুরীর জন্মদিন উপলক্ষে স্মারক বক্তৃতা ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। ধানমন্ডির বিলিয়া মিলনায়তনে (বাড়ি-২২, রোড-৭) বিকেল ৩টায় এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

সভার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী এডভোকেট আনিসুল হক এমপি।

‘কবীর চৌধুরী স্মারক বক্তৃতা-৫’ প্রদান করবেন ‘হিউম্যান রাইটস কংগ্রেস ফর বাংলাদেশ মাইনরিটিয’-এর সভাপতি অধ্যাপক অজয় রায়।

বাংলাদেশে জঙ্গী মৌলবাদ ঃ বিপন্ন মুক্তচিন্তা’ শীর্ষক এই আলোচনা সভায় সূচনা বক্তব্য প্রদান করবেন ‘একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি’র সহ-সভাপতি অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন। সভাপতিত্ব করবেন নির্মূল কমিটির উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা বিশিষ্ট সাংবাদিক কামাল লোহানী।