২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পদ্মা সেতুতে দুর্নীতি হয়নি, ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে ॥ টিআইবি

নিজস্ব সংবাদদাতা, লক্ষ্মীপুর, ১১ ফেব্রুয়ারি ॥ ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেছেন, পদ্মা সেতুতে দুর্নীতি হয়নি। একটি বিদেশী সংস্থা দুর্নীতির অজুহাত তুলেছে পদ্মা সেতু প্রকল্পের গতিরোধ করার জন্য। এতে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। তিনি বলেন, তার সংস্থা (টিআইবি) বিশ^ব্যাংককে আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে সক্ষম হয়েছে। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংকের অন্যতম সদস্য দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। একই সঙ্গে যারা পদ্মা সেতুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি তিনি আহবান জানিয়েছেন।

ড. ইফতেখারুজ্জামান আরও বলেন, দেশে দুর্নীতি বন্ধ হলে জাতীয় প্রবৃদ্ধির হার ৬ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশেরও বেশী অর্জন সম্ভব। দেশে দুর্নীতির কারণে যে অবৈধ অর্থ সম্পদ অর্জিত হয়, তার একটি বিরাট অংশ বিদেশে (উন্নত দেশগুলোতে) পাচার হয়। সাধারণ মানুষের ওপর যার প্রভাব পড়ে। দেশে সাম্প্রতিককালের সবচেয়ে বড় আলোচিত দুর্নীতির ঘটনার সব কয়টিতেই কোন না কোনভাবে বিদেশী বিভিন্ন সংস্থা ও কর্পোরেট হাউসগুলোর যোগসাজশ রয়েছে এবং প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। তিনি বলেন, গত ১০ বছরে দেশে দুর্নীতি অনেকটা কমেছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে দেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। বিশে^র দরবারে বাংলাদেশ একটি শক্তিশালী দেশ হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে।

বুধবার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর জেলা শহরের একটি রেস্তরাঁয় “স্থানীয় পর্যায়ে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলন: সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ” শীর্ষক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় সরকারী বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, এনজিও কর্মী, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন স্তরের লোকজন উপস্থিত থেকে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন। তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রীয়ভাবে দুর্নীতির আশ্রয়প্রশ্রয় বন্ধ করা, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা গেলে দুর্নীতি কমে আসবে। এগিয়ে যাবে দেশ। লক্ষ্মীপুর জেলা সনাকের আয়োজনে জেলা শাখার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা বনশ্রীপালের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র আবু তাহের, সিভিল সার্জন গোলাম ফারুক ভূঁইয়া, সাবেক অধ্যক্ষ খলিলুর রহমান চৌধুরী, অধ্যাপক রফিকুল আহসান, প্রবীণ শিক্ষক আবুল মোবারক প্রমুখ। সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন গাজী গিয়াস উদ্দিন ।