২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মারুফ মতিনের পদত্যাগ গ্রহণ সিআরও বরখাস্ত

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ওয়ালি-উল মারুফ মতিনের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। একইসঙ্গে চিফ রেগুলেটরি অফিসার (সিআরও) আহমেদ দাউদকে বরখাস্তের নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। বুধবার রাতে স্টক এক্সচেঞ্জটির চেয়ারম্যানকে চিঠির মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হয়। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই তথ্য বলা হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার বিএসইসির কমিশন সভায় পূর্ব নির্ধারিত আলোচ্য সূচী অনুযায়ী সিএসই এমডি’র পদত্যাগের বিষয়টি উঠে আসে। সেই দিন কমিশন চেয়ারম্যান ড. এম. খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সংশ্লিষ্ট তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পর্যালোচনা শেষে সিএসইর এমডি ওয়ালি-উল মারুফ মতিনের পদত্যাগপত্র অনুমোদন হয়। এ ছাড়া দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতা ও এখতিয়ারের বাইরে কাজ করার দায়ে স্টক এক্সচেঞ্জটির সিআরও আহমেদ দাউদকে বরখাস্তেরও নির্দেশ দেয় কমিশন।

এদিকে ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য সিএসইর পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের সতর্ক করেছেন কমিশন। বুধবার রাতে সিএসইর পরিচালনা পর্ষদকে এসব বিষয়ে চিঠি দেয় বিএসইসি। চিঠিতে মারুফ মতিনের পদত্যাগ গ্রহণের পাশাপাশি সিএসইর চেয়ারম্যানসহ পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের সংস্থাটির ব্যবস্থাপনার কাজে নানা অযাচিত হস্তক্ষেপেরও সমালোচনা করা হয়। ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনা এড়িয়ে চলারও পরামর্শ দেয় কমিশন।

উল্লেখ্য, গত ৩০ নবেম্বর পদত্যাগপত্র জমা দেন সিএসইর এমডি ওয়ালি-উল মারুফ মতিন। সিএসইর পরিচালনা পর্ষদের অযাচিত হস্তক্ষেপের কারণে স্বাধীনভাবে কর্মকা পরিচালনা করতে পারছেন না - এমন কারণ উল্লেখ করে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেন। পরবর্তীতে তিনি নতুন করে আরও একটি পদত্যাগপত্র জমা দেন। এতে ‘ব্যক্তিগত’ কারণে পদত্যাগ করেছেন বলে উল্লেখ করেন। তার এ পদত্যাগপত্র সিএসইর বিশেষ জরুরী বৈঠকে গৃহীতও হয়। কিন্তু দুই ধরনের পদত্যাগপত্র জমা দেয়ায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে কমিশন।

বিএসআরএম স্টিলের সঙ্গে একীভূত হবে বিএসআরএম আয়রন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিএসআরএম স্টিলের সঙ্গে অ-তালিকাভুক্ত বিএসআরএম আয়রন একীভূত হবে। কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় একীভূতকরণের এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

একীভূতকরণের মাধ্যমে বিএসআরএম স্টিল এবং বিএসআরএম আয়রনের সব ধরনের সম্পদ ও দায় বিএসআরএম’র অনুকূলে স্থানান্তরিত হবে। কোম্পানি আইন ১৯৯৪-এর ২২৮ ও ২২৯ ধারা অনুযায়ী একীভূতকরণের বিষয়টি কার্যকর হবে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এদিকে একীভূতকরণের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনে বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) আহ্বান করেছে কোম্পানিটি। আগামী ৩০ মার্চ সকাল সোয়া ১১টায় চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে ইজিএম অনুষ্ঠিত হবে। শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের পাশাপাশি সুপ্রীমকোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের অনুমতি সাপেক্ষে একীভূতকরণের বিষয়টি কার্যকর হবে বলে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।