১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

চাঁপাইয়ে অবহেলিত জনপদ মহাসড়কের আওতায় আসছে

স্টাফ রিপোর্টার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ সহস্র বছরের অবহেলাকে এবার বড় মাপের মূল্যায়ন করে যুগান্তকারী পরিবর্তন আনা হয়েছে বা হচ্ছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের চরাঞ্চলে। বিচ্ছিন্ন অনগ্রসর এলাকা বা অঞ্চল বলতে এতদিন মানুষ বুঝেছে চরজীবনকে। শহরের সঙ্গে চরাঞ্চলের সুষ্ঠু যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় জনজীবন সব ধরনের সুখ সুবিধা হতে শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে বঞ্চিত হয়ে এসেছে। তারা শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আবাসনসহ সব ধরনের মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হতে হতে মেনেই নিয়েছিল এটাই তাদের নির্ধারিত ভাগ্য। যা প্রাকৃতিকভাবেই হোক কিংবা সৃষ্টিকর্তা কর্তৃক চাপিয়ে দেয়া হোক এর থেকে বেরিয়ে আসার বিকল্প নেই। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের সরকার এই চরাঞ্চলেই বড় ধরনের বিপ্লব এনে সহস্র বছরের লালিত ভাগ্যহতদের মেনে নেয়া অন্ধকার যুগের অবসান ঘটাতে যাচ্ছে। যা শুধু উপজেলা কিংবা জেলা শহরকে সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে আলোকিত করবে এমনটির বাইরেও তা বিভাগীয় শহর পর্যন্ত সম্প্রসারিত হবে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর ও শিবগঞ্জ চরাঞ্চলের মানুষের সুবিধার্থে ৩৮ কিলোমিটার পাকা সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। যা বর্ষা কিংবা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে না জনজীবন। সকল মৌসুমেই একই ধারায় সুষ্ঠু ও নির্ভরশীল যোগাযোগ ব্যবস্থা বহাল থাকবে। মাত্র ১২ কেটি টাকা ব্যয়ে বর্ষার আগেই নির্মাণ করা হবে ৩৮ কিলোমিটার পাকা সড়ক। যাকে বলা হচ্ছে চরাঞ্চলে যোগাযোগের নতুন দিগন্ত। বিশেষ করে শিবগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম অঞ্চলের সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষ ওই সড়ক পথে সরাসরি চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে যেতে পারবে। পরবর্তীতে পৌঁছতে পারবে রাজশাহী বিভাগীয় শহর। তাদের মনাকষা, শিবগঞ্জ, বহলাবড়ি, রানীহাটি পেরিয়ে আসতে হবে না। কমে আসবে দূরত্ব চরের সঙ্গে জেলা শহরের। এমনকি বড় ধরনের চিকিৎসা সেবা নিতে বা পড়াশুনার সুযোগ গ্রহণ করতে পৌঁছতে পারবে রাজশাহী, ঢাকা। পাশাপাশি সীমান্তের শতাধিক গ্রামের মানুষের সীমান্ত অতিক্রম করার প্রবণতাও কমে আসবে। সড়কের স্থায়িত্ব বাড়াতে নির্মাণ করা হচ্ছে সড়কের পাশে পানি নিষ্কাশন ড্রেন।

এলজিডির কর্মকর্তা জনকণ্ঠকে জানান, সড়কের কাজ শেষ হওয়া মাত্র অটোরিক্সাসহ বিভিন্ন ধরনের ছোট-বড় যানবাহন কম ভাড়াতে চলাচল করতে পারবে। এই সড়কের ২২ কিলোমিটার সদর উপজেলার মধ্যে ও বাকি ১৬ কিলোমিটার থাকবে শিবগঞ্জ উপজেলার মধ্যে।

রাজশাহীতে এক রাতে তিন বাড়িতে ডাকাতি

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী নগরীতে এক রাতে আকবর আলী, জাফর আলী ও তারেকের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতরা বাড়ির লোকজনের হাত, পা বেঁধে মারপিট করে স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রায় তিন লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে। নগরীর রাজপাড়া থানার লিলি সিনেমা হলের মোড় এলাকায় বুধবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সকালে রাজপাড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বাড়ির মালিক আকবর আলী জানান, রাত তিনটার দিকে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ডাকাতরা প্রথমে তার বাড়ির দরজা ভেঙ্গে ভেতর প্রবেশ করে পরিবারের সব সদস্যের হাত-পা বেঁধে মারপিট করে।