১৩ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ধারাবাহিকতার অভাব কে বলল গর্জন শাস্ত্রীর

ধারাবাহিকতার অভাব কে বলল গর্জন শাস্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক॥ শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে অপ্রত্যাশিত হারে প্রভাবিত হয়ে পড়া নয়, বরং নতুন টার্গেট সাজিয়ে ফেলছেন রবি শাস্ত্রী। ভারতীয় টিম ডিরেক্টর পরিষ্কার বলে দিচ্ছেন, চলতি সিরিজে তাঁরা চেষ্টা করবেন বিভিন্ন কম্বিনেশন ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে দেখে নেওয়ার।

আগামী মাসেই দেশে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মেহফিল শুরু হয়ে যাচ্ছে। যে টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত প্রস্তুতি হিসেবে দু’টো সিরিজ পাচ্ছে ভারত। চলতি শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তিনটে টি-টোয়েন্টি এবং মাসের শেষাশেষি বাংলাদেশে এশিয়া কাপ, যা হবে টি-টোয়েন্টি ফর্ম্যাটে। শাস্ত্রী চাইছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্কোয়াডে যাঁরা আছেন, তাঁদের শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দেখে নিতে। ‘‘আমাদের চেষ্টা সেটাই থাকবে। তবে পাশাপাশি এটাও দেখতে হবে পরিবেশ-পরিস্থিতি, সিরিজের অবস্থা কী রকম থাকে,’’ রাঁচিতে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে নামার চব্বিশ ঘণ্টা আগে বলে দিচ্ছেন শাস্ত্রী।

পাশাপাশি প্রথম ম্যাচে পিচ নিয়ে সমালোচনার প্রশ্নের উত্তরও দিয়ে রেখেছেন শাস্ত্রী। বলেছেন, ‘‘যদি পিচ ভাল হয়, বলব ভাল। যদি পিচ থেকে অনেক সাহায্য পাওয়া যায়, বলব পিচ থেকে অনেক সাহায্য পাচ্ছি। আমাদের যা মনে হচ্ছে সেটা বলতে ভয় পাব কেন?’’ এখানে না থেমে ভারতীয় টিম ডিরেক্টর আরও যোগ করেছেন, ‘‘তার মানে ভাববেন না, ম্যাচ হারার জন্য অজুহাত দিচ্ছি। আমাদের একশো চল্লিশ করা উচিত ছিল। যা ওই সারফেসে ভাল লড়াই দেওয়ার মতো স্কোর হত।’’

রাঁচির পিচ অবশ্য পুণের থেকে একশো আশি ডিগ্রি উল্টো। শুকনো খটখটে পিচ, ঘাসের লেশমাত্র নেই। কোনও ভাবেই যাকে ‘ইংলিশ উইকেট’ বলার জায়গা থাকবে না। পুণে উইকেট নিয়ে যা বলে গিয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। ‘‘আসলে অস্ট্রেলিয়া থেকে ফেরার চার-পাঁচ দিনের মধ্যে আমরা এখানে নেমে গিয়েছি। প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের পিচ যা ছিল, তা আবার উপমহাদেশে খুব একটা দেখা যায় না। বোলারদের জন্য ওখানে ভাল সাহায্য ছিল। বল সিম করেছে, টার্ন করেছে, পিচে বাউন্স ছিল। আবার উইকেটটা ডাবল পেসডও ছিল। কিন্তু ওই যে বললাম, কোনও অজুহাত দেব না হারের জন্য। আমি তো বললামই যে, একশো আশি বা ষাট নয়, একশো চল্লিশ ওখানে যথেষ্ট হত।’’

আর মিডিয়া যা-ই বলুক, ভারতীয় টিম ডিরেক্টর মনে করেন, টিমের ধারাবাহিকতায় কোনও সমস্যা হচ্ছে না। বলছেন, ‘‘আমি তো বলব এই টিমটা অসম্ভব আত্মবিশ্বাসী একটা টিম। যারা গত আঠারো মাস ধরে খুব ভাল ক্রিকেট খেলে এসেছে। সেটা রেজাল্ট দেখলেই বোঝা যাবে। আমাদের যদি ধারাবাহিকতায় সমস্যা থাকত, টেস্টে আমরা এক নম্বর হতাম না। টি-টোয়েন্টিতে দু’নম্বরও না।’’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা