২০ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদা পাকিস্তানের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে কথা বলছেন ॥ তোফায়েল

নিজস্ব সংবাদদাতা, ভোলা, ১২ ফেব্রয়ারি ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ২০১৫ সালে ৫ জানুয়ারি থেকে ৯২ দিন যিনি মানুষ হত্যা করেছেন, পুলিশ হত্যা করেছেন, নিষ্পাপ শিশুকে পেট্রোলবোমা মেরে হত্যা করেছেন, সেই খালেদা জিয়া আজ পাকিস্তানের পক্ষে। স্বাধীনতা যুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছে। অথচ খালেদা জিয়া বলছেন এটা নিয়ে বিতর্ক আছে। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া পাকিস্তানের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে কথা বলছেন। তার ব্যাপারে ভবিষ্যতে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তিনি নিজেও দুর্নীতি মামলার আসামি। খালেদা জিয়ার ছেলে পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মন্তব্য করতে বাধে না। তাই বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করে আওয়ামী লীগকে বুকে ধারণ করার জন্য আহবান জানান। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় দৌলতখানে বাণিজ্যমন্ত্রীকে সংবর্ধনাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ভোলার দৌলতখান ও বোরহানউদ্দিন উপজেলাকে নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষার জন্য একনেকে ৫শ’ কোটি ৫১ লাখ টাকার প্রকল্প অনুমোদন হওয়ায় ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এবং ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুলকে সংবর্ধনা দিয়েছে এলাকাবাসী। দৌলতখান বাজারে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠান এক পর্যায়ে বিশাল জনসভায় পরিণত হয়। এ সময় ফুল দিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তোফায়েল আহমেদ এমপি ও আলী আজম মুকুল এমপিকে অভিনন্দন জানান।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তোফায়েল আহমেদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী ভোলাকে ভালবাসেন। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, যে করেই হোক ভোলাকে রক্ষা করতে হবে। তাই তিনি ভোলা রক্ষায় এত বড় প্রকল্প অনুমোদন করেছেন। গ্যাস সমৃদ্ধ এই জেলাকে রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী খুবই আন্তরিক। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নদীর চর নিয়মিত ড্রেজিং করা হবে। প্রধানমন্ত্রী গ্রামকে শহর করেছেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, আমি মানুষের জন্য রাজনীতি করি। নিজের জন্য করলে বাংলাদেশের বড় ধনী হতে পারতাম। তিনি বলেন, ভোলা হবে বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে সমৃদ্ধশালী জেলা। এখানে পর্যাপ্ত পরিমাণ গ্যাস রয়েছে। গ্যাসভিত্তিক অনেক শিল্প-কারখানা গড়ে উঠবে। দৌলতখানে পোর্ট হতে পারে। ভোলা থেকে বরিশাল পর্যন্ত ব্রিজ করার পরিকল্পনা রয়েছে। পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ শেষ হলে ভোলার সঙ্গে দেশের সড়ক যোগাযোগ সহজ হয়ে হবে। তখন ভোলা আর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ থাকবে না। বিদেশীরা ভোলা আসবে।

দৌলতখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন ভোলা-২ আসনের সাংসদ আলী আজম মুকুল, দৌলতখান উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম খান প্রমুখ।

অপরদিকে দুপুর সাড়ে ১২টায় বোরহানউদ্দিন উপজেলায়ও বাণিজ্যমন্ত্রী ও ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্যকে পৃথক সংবর্ধনা দিয়েছে এলাকাবাসী।