২০ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সরস্বতী পূজা আজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ সরস্বতী পূজা, বাণী অর্চনার আরাধ্য দিন। শুক্লা পঞ্চমীতে আজ শ্বেতশুভ্র কল্যাণময়ী বিদ্যাদেবীর আবাহন হবে। ঢোল-কাঁসি আর শঙ্খনিনাদে মুখরিত হয়ে উঠবে দেশের পূজাম-পগুলো। ভোর থেকেই মঙ্গলালোকে উদ্ভাসিত ধুপ-ধুনোর গন্ধে মাতোয়ারা ধরণীতে বেজে উঠবে শান্তির মোহনীয় সুর।

সনাতন ধর্মানুসারে সরস্বতী দেবী বিদ্যা ও জ্ঞানের দেবী বলে আজ অধিকাংশ স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে বাড়িতে অনুষ্ঠিত হবে বিদ্যা দেবীর পূজা। শিশু সন্তানরা পূজার পর দেবীর সামনে হাতেখড়ি দিয়ে প্রবেশ করবেন শিক্ষা জীবনে। শিক্ষার্থীরা উপোস করে সরস্বতী দেবীর চরণে পুষ্পাঞ্জলি দিয়ে তার আশীর্বাদ নেবেন। সরস্বতী পূজা উপলক্ষে হিন্দু সম্প্রদায়কে শুভেচ্ছা জানিয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরস্বতী বিদ্যার ও ললিতকলার অধিষ্ঠাত্রী দেবী হিসেবে পূজিত হবেন। ঐশ্বর্যদায়িনী, বুদ্ধিদায়িনী, জ্ঞানদায়িনী, সিদ্ধিদায়িনী, মোক্ষদায়িনী এবং শক্তির আধার হিসেবে সরস্বতী দেবীর আরাধনা করা হয়।

সরস্বতী দেবী শ্বেতশুভ্র বাসনা। তার এক হাতে বেদ, অন্য হাতে বীণা। এ জন্য তাকে বীণাপাণিও বলা হয়। কুসংস্কার, গোঁড়ামি, অন্ধবিশ্বাস এবং ধর্মীয় সঙ্কীর্ণতার অবসান ঘটিয়ে জ্ঞানচক্ষুর উন্মিলনের মাধ্যমে সুন্দরের পথে মানবকুলকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যাশায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ প্রতিবছর শ্রীপঞ্চমী তিথিতে সরস্বতী পূজা করে থাকেন।

সকাল হতে উপবাস থেকে মন্ত্র উচ্চারণের মাধ্যমে ভক্তরা প্রার্থনা জানাবেন বিদ্যাধিষ্ঠাত্রীর। হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে সরস্বতী জ্যোতির্ময়ী অধিষ্ঠাত্রী দেবী। তিনি বাগদেবী। সরস্বতী নদীর তীরে দেবীর স্তোত্র ও আরাধনার মাধ্যমে বেদধ্বনি হতো বলে এই নদী বাগদেবীর বাসস্থান বলে অভিহিত। নদী অর্থে তিনি পবিত্র তোয়া সঙ্গীতময় ও সুন্দর স্তোত্রের উদ্বোধনকারী। বাগদেবী অর্থে তিনি মানবহৃদয়কে পবিত্র করেন। তিনি সুন্দর ও মর্ত্যবাক্যের প্রেরণকারী। তিনি মহাসমুদ্রের মতো পরমাত্মার প্রকাশ করেন। তিনি সমুদয় মানব-মানবীর হৃদয়ে জ্যোতি সঞ্চারিত করেন। পরমাত্মার মুখ থেকে তার আবির্ভাব।

দেবী সরস্বতী শুক্লবর্ণ, বাণীধারী ও চন্দ্রের শোভাযুক্ত। তিনি শ্রুতি ও শাস্ত্রের মধ্যে জ্যেষ্ঠ, কবিদের ইস্ট- এ জন্য তার নাম সরস্বতী। মাঘ মাসের শুক্লা পঞ্চমী দিন অর্থাৎ আজ মঙ্গলবার তার আরাধনার শুভ দিন।

সনাতন ধর্মানুসারে সরস্বতী দেবী বিদ্যা ও জ্ঞানের দেবী বলে আজ দেশের অধিকাংশ স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিদ্যার্থীদের বাড়িতে বাড়িতে, ম-প-মন্দিরে ভক্তিভরে অনুষ্ঠিত সরস্বতী পূজা। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মেতে উঠবেন সরস্বতী পূজার আনন্দে।

প্রতিবছরের মতো এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে সরস্বতীর পূজার মহা আয়োজন চলছে। জগন্নাথ হলে কেন্দ্রীয় পূজাম-প ছাড়াও এবার ৬২টি বিভাগ মিলিয়ে মোট ৭০টি পূজাম-প স্থাপন করা হয়েছে। চারুকলা বিভাগ এবারও হলের পুকুরে মাঝখানে দৃষ্টিনন্দন ভাসমান ম-প গড়ে তুলেছে। আর দ্বিতীয়বারের মতো জাতীয় সংসদের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয়েছে বাণী অর্চনার। সংসদ ভবন সংলগ্ন মানিক মিয়া এ্যাভিনিউর রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এই পূজা অনুষ্ঠিত হবে। সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ঢাকেশ^রী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনের কেন্দ্রীয় পূজাম-পে সরস্বতী পূজার আয়োজন করেছে। এখানে সকাল ৬টায় প্রতিমা স্থাপন, ৯টায় পূজা, ১০টায় পুষ্পাঞ্জলি প্রদান, বেলা ১২টায় প্রসাদ বিতরণ, সন্ধ্যা ৭টায় সন্ধ্যা আরতি এবং রাতে আলোকসজ্জার আয়োজন করা হয়েছে।

এ ছাড়া রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ, রমনা কালীমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রম, ঢাকা আইনজীবী সমিতি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ^বিদ্যালয়, ইসকন মন্দির, মিরপুর কেন্দ্রীয় মন্দির, বুলবুল ললিতকলা একাডেমি (বাফা), ব্যাংকার্স পূজা পরিষদ, রামসীতা মন্দির, ইডেন মহিলা কলেজ, ঢাকা কলেজ, তিতুমীর কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, মিরপুর সরকারী বাংলা কলেজ, ভিকারুননিসা নূন স্কবুল এ্যান্ড কলেজ, মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও ফরিদাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সংগঠন এবং রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে। এসব ম-পে সকাল ৬টা থেকে ১১টার মধ্যে পূজা ও পুষ্পাঞ্জলি প্রদান ছাড়াও প্রসাদ বিতরণ, আপ্যায়ন, আলোকসজ্জা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হবে।