২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শনিরআখড়ায় মাইক্রোতে আগুন, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় এক বৃদ্ধসহ দু’জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় যাত্রাবাড়ীর শনিরআখড়ায় ঘাতক মাইক্রোবাসে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। এদিকে পল্লবী ও মধ্যবাড্ডায় নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া পূর্ব রামপুরায় একটি বাসায় গ্যাসের চুলা থেকে অগ্নিকা-ে দুই যুবক দগ্ধ হয়েছে। শুক্রবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও গুলশানে সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার বিকেলে যাত্রাবাড়ীর শনির আখড়ায় পেট্রোল পাম্পের সামনে দ্রুতগামী মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মোফাজ্জল (৭০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। তিনি নারায়ণগঞ্জের সিদ্দিরগঞ্জ ঝালকুড়ি এলাকায় থাকতেন। এ দুর্ঘটনায় নিহতের ভাতিজা জসিম আহত হয়েছেন। এতে বিক্ষুব্ধ জনতা ওই মাইক্রোবাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। যাত্রবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান জানান, বিকেলে একটি সাদা মাইক্রোবাস দ্রুতগতিতে চিটাগাং রোড থেকে যাত্রাবাড়ীর দিকে আসার পথে শনিরআখড়া এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় ওই পথচারীদের ধাক্কা দেয়। এতে চাচা তোফাজ্জল ঘটনাস্থলে মারা যান। আর ভাতিজা জসিম আহত হন। পরে জসিমকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওসি আনিসুর রহমান জানান, ঘটনার পর চালক পালিয়ে গেলেও বিক্ষুব্ধ জনতা ওই মাইক্রোবাসে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে রাজধানীর গুলশান গোল চত্বরে লেগুনার ধাক্কায় আরিফ (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের বাবার নাম চাঁন গাজি। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার সদরের কুলশিবাড়িয়া গ্রামে। তিনি মধ্য বাড্ডার পোস্ট অফিস গলিতে ভাড়া বাসায় থাকতেন। পেশায় টাইলস মিস্ত্রীর কাজ করতেন। নিহতের ভাই হেলাল জানান, বৃহস্পতিবার গভীররাতে কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে গুলশান-১ বিসিসি মার্কেটের সামনে আরিফের সাইকেলকে একটি লেগুনা ধাক্কা দেয়। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রাত ১টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

দুই শ্রমিকের মৃত্যু ॥ পল্লবী এলাকায় বাড়ির ছাদ থেকে পা পিছলে পড়ে আবুল কাশেম (৬০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। নিহতের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগরে। নিহতের ছেলে মাহমুদুল হাসান জানান, শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে তার বাবা সাততলা বাড়ির ছাদে গিয়ে কাজ করতে গেলে পা পিছলে নিচে পড়ে যায়। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টার দিকে বাবা মারা যান।

এদিকে একইদিন রাজধানীর মধ্যবাড্ডা এলাকায় একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে নিচে পড়ে আল আমিন (২৫) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই সেন্টু চন্দ্র দাস জানান, শুক্রবার সকাল ১০টায় মধ্যবাড্ডার মোল্লাপড়া মসজিদ সংলগ্ন ম-লগার্ডেন এ্যাপার্টমেন্টের সাততলা নির্মাণাধীন ভবনে কাজ করার সময় অসাবধানবশত নিচে পড়ে যায় শ্রমিক আল আমিন। পরে সহকর্মী আফজালসহ অন্যান্যরা তাকে উদ্ধার করে দুপুরে ঢামেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ তার লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়।

অগ্নিদগ্ধ দুই যুবক ॥ রাজধানীর পূর্ব রামপুরায় একটি বাসায় গ্যাসের চুলা থেকে অগ্নিকা-ে দুই যুবক দগ্ধ হয়েছে। পরে তাদের দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। দগ্ধরা হচ্ছেন, রাজিব (২২) ও সরোয়ার (২৬)। দগ্ধ রাজিবের ভাই মামুন জানান, রাজিবের শরীরের ২৫ শতাংশ ও সরোয়ারের শরীরের ২০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাদের বাড়ি কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার দৌলতপুর গ্রামে। রামপুরা থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক জামান মিয়া বিষয়টি জানান, শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে পূর্ব রামপুরার ২১ নম্বর ভবনের নিচতলায় গ্যাসের চুলায় আগুন জ্বালাতে গিয়ে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে। পরে আগুন ওই ফ্ল্যাটটিতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় রাজিব ও সারোয়ার দগ্ধ হয়। তিনি জানান, আগে থেকেই কেউ চুলার গ্যাস চালু করে রেখে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তদন্ত চলছে।