২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশের ফাইনালে যাওয়ার পথে আজ বাধা ভারত

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শিরোপা জেতার চেয়ে তা ধরে রাখা কঠিন। আর সেই কঠিন পরীক্ষায় পড়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক ফুটবল দল। এসএ গেমসের গত আসরের শিরোপা ধরে রাখার মিশনে আজ তাদের অবতীর্ণ হতে হবে সেমিফাইনালের দ্বৈরথে। ফাইনালে যাওয়ার পথে আজ তাদের বাধা আছে একটি। সে বাধার নাম ভারত। স্বাগতিক ও শক্তিশালী এই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে সারুসাজাইয়ের ইন্দিরা গান্ধী এ্যাথলেটিক স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় খেলতে নামবে ‘বেঙ্গল টাইগার্স’ দল। একই দিন একই ভেন্যুতে প্রথম সেমিতে মুখোমুখি হবে মালদ্বীপ-নেপাল।

সেমির দ্বিতীয় ম্যাচকে ঘিরেই বেশি আলোচনা হচ্ছে। সেমিফাইনাল নিয়ে রীতিমতো রোমাঞ্চিত বাংলাদেশের যুবারাÑ জানান বাংলাদেশ দলের স্প্যানিশ কোচ গঞ্জালো সানচেজ মরেনো, ‘স্বাগতিকদের বিপক্ষে ম্যাচটা খুব সহজ হবে না। তবে নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলেই ভারতকে হারিয়ে দেয়া সম্ভব।’

গত এসএ গেমসে (পুরুষ) ফুটবলে বাংলাদেশ ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল। জয়সূচক গোলটি করেছিলেন তৌহিদুল আলম সবুজ। মজার বিষয়, এই ম্যাচটিও ছিল সেমিফাইনালের! তবে হেড টু হেডে অনেকটাই পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ অলিম্পিক দল। ভারত অলিম্পিক দলের সঙ্গে এ পর্যন্ত ৫ ম্যাচ খেলেছে তারা। বাংলাদেশে জিতেছে মাত্র ১ ম্যাচে। ভারত জিতেছে ২ ম্যাচে। বাকি ২ ম্যাচ ড্র হয়।

এবারের আসরে বাংলাদেশ তাদের প্রথম ম্যাচে ভুটানের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে। দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালকে হারায় ২-১ গোলে। এতে তারা অপরাজিত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন (২ খেলায় ৪ পয়েন্ট, ‘বি’ গ্রুপ) হয়ে শেষ চারে নাম লেখায়। পক্ষান্তরে ‘এ’ গ্রুপে ভারত প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ০-১ গোলে হেরে ধাক্কা খায়। পরের ম্যাচে অবশ্য মালদ্বীপকে অতিকষ্টে ৩-২ গোলে হারিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে শেষ চারে উন্নীত হয় (২ খেলায় তাদের পয়েন্ট ৩, মালদ্বীপেরও তাই। তবে গোল গড়ে মালদ্বীপ হয় গ্রুপের সেরা দল)।

মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে গ্রুপের দুই ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। একদিন বিরতি দিয়েই নামতে হচ্ছে সেমিফাইনালে। তাই কিছুটা ক্লান্তি রয়েছে ফুটবলারদের মধ্যে। তবে একদিনের বিরতিতে যতটা সম্ভব সেটি কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করেছে বাংলাদেশ দল। দলের সবাই ফিট আছে। কোন ইনজুরি সমস্যাও নেই। সেমিফাইনালের জন্য সবাই প্রস্তুত বলে জানান বাংলাদেশ দলের কোচ গঞ্জালো।

গ্রুপে ভারতের দুটি ম্যাচ দেখে তাদের সম্পর্কে ধারণা নিয়েছেন মরেনো। তারা যে খুব শক্তিশালী প্রতিপক্ষ সেটিও মানছেন তবে নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলেই ভারতের বিপক্ষে জয় পাওয়া সম্ভব বলে বিশ্বাস মরেনোর, ‘ভারত গ্রুপের দুটি ম্যাচই খুব সিরিয়াসলি খেলেছে। নিঃসন্দেহে তারা শক্তিধর প্রতিপক্ষ। তারা স্বাগতিক দল। তাদের হারানোটা খুব সহজ হবে না। তবে আমরা যদি শুধু আমাদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারি তবে অবশ্যই ভারতকে হারানো সম্ভব। ছেলেরা এখন তাদের পারফর্মেন্সটা করার জন্য মুখিয়ে আছে। ভাল পারফর্মেন্স করাটাই এখন আমাদের প্রধান লক্ষ্য।’ আগের ম্যাচে ভাল খেলেছে বাংলাদেশ। কোচ মরেনো এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমার ডিফেন্ডাররা অনেক অভিজ্ঞ। তারা জর্দানের মতো দলের বিপক্ষে খেলেছিল। মাঝে মাঝে প্রতিপক্ষ দলগুলো শক্ত রক্ষণভাগ ভেদ করে গোল আদায় করে নেয়। নেপালও তাই করেছে। তবে সবাই এখন তৈরি। আমি আত্মবিশ্বাসের সুরেই বলছি, আগামীকাল ভাল একটি ম্যাচ হবে।’

মাঠ প্রসঙ্গে মরেনোর ভাষ্য, ‘যে মাঠটিতে সেমিফাইনাল হবে সেটি খুবই ভাল মাঠ। ভারতকে হারাতে হলে আমাদের বেশিরভাগ সময়ই বলের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে হবে। এটা নিয়ে আমার ফুটলারদের সঙ্গে কথা হয়েছে। কোনমতেই গোল মিস করা যাবে না। আর বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো বল হারানো চলবে না। এ্যাটাকিং কিংবা কাউন্টার এ্যাটাকিং নয়, আমাদের টার্গেট বল নিয়ন্ত্রণে রাখা।’ যদিও ভারতের মাটিতে ম্যাচ, তারপরও স্বাগতিকদের নয়, বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নিজেদের ফেবারিট মনে করেন বাংলাদেশের কোচ মরেনো।

এখন দেখার বিষয়, ফেবারিট হিসেবে আজ বাংলাদেশ হারাতে পারে কি না ভারতকে।