২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জয়ে ফিরলেন নাদাল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অসাধারণ পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে ইতোমধ্যেই নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন রাফায়েল নাদাল। সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে ১৪ গ্র্যান্ডসøাম ছাড়াও জিতেছেন অসংখ্য ডব্লিউটিএ শিরোপা। কিন্তু সর্বশেষ মেজর টুর্নামেন্ট জিতেছিলেন দুই বছর আগে। ২০১৪ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেন জয়ের পর গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টে আর সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি তিনি। নতুন বছরে নতুন উদ্যমে শুরুর প্রত্যয় ব্যক্ত করেছিলেন এই স্প্যানিয়ার্ড। কিন্তু ফলাফল তার বিপরীত। মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের প্রথম পর্ব থেকেই বিদায়! যা তার ক্যারিয়ারে গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নেয়ার দ্বিতীয় ঘটনা।

এরপর থেকেই বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন নাদাল! তাহলে কী ফুরিয়েই যাচ্ছেন তিনি? তবে টেনিস কোর্টে জয়ে ফিরতে খুব বেশি সময় নেননি স্প্যানিশ এই টেনিস তারকা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের পর শুক্রবার বুয়েনস ইয়ার্স এইরেসে এটিপি আর্জেন্টিনা ওপেনে প্রথমবারের মতো কোর্টে নামেন তিনি। শুরুটাও করেন দারুণ জয়ে। এদিন তিনি ৬-৪ এবং ৬-৪ গেমে হারান জুয়ান মোনাকোকে। প্রতিপক্ষকে হারাতে রাফায়েল সময় নেন ১ ঘণ্টা ৩৮ মিনিট। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নাদাল। এবারও শিরোপা ধরে রাখাটা তার জন্য চ্যালেঞ্জ। নতুন বছরে প্রথম শিরোপা জিততে নাদালও দারুণ আশাবাদী। আর সেই অর্জনের পথে কোয়ার্টার ফাইনালে তার প্রতিপক্ষ এখন ইতালির পাওলো লোরেঞ্জি। তুলনামূলকভাবে জুয়ান মোনাকে খর্ব শক্তির খেলোয়াড়। তাছাড়া গত বছর আগস্টে সর্বশেষ কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। তাই ইতালিয়ান এই তারকাকে হারাতে যতটা না শক্তি ব্যয় করতে হয়েছে। তাই কোয়ার্টার ফাইনালের প্রতিপক্ষ পাওলো লোরেঞ্জিকে হারাতে হলে আরও ঘাম ঝরাতে হবে যে তা অনুমিতই।

আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই শুরু হবে মৌসুমের দ্বিতীয় গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট ফ্রেঞ্চ ওপেন। যেখানে রেকর্ড নবমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন তিনি। নাদালের জেতা ১৪ গ্র্যান্ডসøামের ৯টিই এই রোঁলা গ্যারোয়! গত এক দশকে ফ্রেঞ্চ ওপেনটাকে যেন একেবারেই নিজের করে ফেলেছেন তিনি। সর্বশেষ মেজর শিরোপাটাও তার এখানে। গত মৌসুমে ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপা হাতছাড়া করায় এবার তার জন্য বাড়তি চ্যালেঞ্জ। সেক্ষেত্রে আর্জেন্টিনা ওপেনে জেতাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এখানে শিরোপা ধরে রাখতে পারলে নিঃসন্দেহেই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ব্যর্থতা থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন তিনি। সেই সঙ্গে মানসিকভাবেও চাঙ্গা থাকবেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাবেক নাম্বার ওয়ান এই তারকা। তবে নাদাল কী পারবেন নিজেকে মেলে ধরতে? সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।