২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ শিরোপা লড়াই রবিবার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আর মাত্র একটি ম্যাচ বাকি। এরপরই পর্দা নামবে অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের একাদশতম আসরের। রবিবার নির্ধারিত হবে শিরোপা যাবে কার ঘরে? এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনুর্ধ ১৯ দল। ২০০৪ সালে বাংলাদেশের মাটিতেই ফাইনালটা খেলে পাকিস্তানের কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। আবারও বাংলাদেশের মাটিতেই এক যুগ পর ফাইনালে উঠে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছে পাকদের প্রতিবেশী দেশ ভারতকে। ১২ বছর আগের আক্ষেপ ঘুচিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিততে চায় তারা। তিনবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারত অনুর্ধ ১৯ দল এবারও অন্যতম ফেবারিট। তাদের লক্ষ্য শিরোপা পুনরুদ্ধার করার। ২০১২ সালে সর্বশেষবার অস্ট্রেলিয়ার মাটি থেকে শিরোপা ঘরে এনেছিল ভারতীয় যুবারা। আরেকটি সুযোগ হাতছাড়া করতে চায় না তারা। রবিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে শিরোপা লড়াইয়ে অবতীর্ণ হবে দু’দল সকাল ৯টায়।

এখন পর্যন্ত চলতি টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলেছে ভারতীয় দল। কোন প্রতিপক্ষকেই বিন্দুমাত্র সুযোগ দেয়নি। সব ম্যাচেই দাপটের সঙ্গে খেলে গুঁড়িয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষদের। সে কারণে প্রথম থেকেই পরিষ্কার হয়ে গেছে এবার অন্যতম শক্তিধর দল ভারত। শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রেও অন্যতম ফেবারিট তারা। এবার আরেকটি ভাল দিনের অপেক্ষা ভারতীয় যুবাদের জন্য। ২০০০ সালে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত যুব বিশ্বকাপের তৃতীয় আসরে প্রথমবার শিরোপা জিতেছিল ভারতীয় দল। স্বাগতিক লঙ্কানদের হারিয়ে দিয়েছিল। ২০০৮ সালে মালয়েশিয়ায় এবং ২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপেও শিরোপা জয় করে। আর ২০০৬ সালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের কাছে হেরে শিরোপা জিততে ব্যর্থ হয়। সেটাই প্রথম এবং শেষবারের মতো কোন যুব বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি ভারতীয় যুবারা। এবার পঞ্চমবারের মতো ফাইনালে উঠেছে তারা। সুযোগ নতুন রেকর্ড গড়ার। অস্ট্রেলিয়া অনুর্ধ ১৯ দলও তিনবার শিরোপা জিতেছে। এবার তারা নিরাপত্তার অজুহাতে খেলতে আসেনি। কিন্তু নির্বিঘেœ এবং স্বাচ্ছন্দ্য ও কোন ধরনের সমস্যা ছাড়াই শেষ হচ্ছে যুব বিশ্বকাপ। অসিরা এবার খেললে আরেকটু জমজমাট হতো লড়াইটা।

প্রকৃতপক্ষে এখন পর্যন্ত চলতি আসরে ভারতের উপযুক্ত কোন প্রতিপক্ষকে দেখা যায়নি। তবে একটি খারাপ দিন সবকিছুই পাল্টে দিতে পারে। আর সেটার জন্যই প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন হতে মুখিয়ে থাকবে ক্যারিবীয়রা। মাত্র একবার ২০০৪ সালে ফাইনালে উঠেছিল দলটি। কিন্তু পাকিস্তানের কাছে হেরে পারেনি ট্রফি ঘরে নিয়ে যেতে। এবার প্রতিপক্ষ ভারত। সেই বাংলাদেশের মাটিতেই আরেকবার সুযোগ ক্যারিবীয় যুবাদের জন্য বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার। সে কারণে বলা যেতেই পারে বাংলাদেশের মাটি বেশ পয়মন্ত তাদের জন্য। সেমিতে আরেক হট ফেবারিট স্বাগতিক বাংলাদেশকে হারিয়ে দিয়েছে তারা। তাই এখন তারা দারুণ উজ্জীবিত এবং আত্মবিশ্বাসী হয়েই মাঠে নামবে।