১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভিভ রিচার্ডসকে পাশে পাচ্ছেন গেইল-স্যামিরা

 ভিভ রিচার্ডসকে পাশে পাচ্ছেন গেইল-স্যামিরা

অনলাইন ডেস্ক ॥ ম্যাচ ফি, স্পন্সরশিপ থেকে প্রাপ্ত অর্থ এবং প্রাইজমানির বণ্টন নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে চলমান লড়াইয়ে খেলোয়াড়দের সমর্থন দিলেন ভিভ রিচার্ডস। এর আগে ড্যারেন স্যামি বোর্ডকে জানিয়েছেন, দ্বিগুণ ম্যাচ ফি, স্পন্সরশিপের ৫০ ভাগ ও প্রাইজমানির পুরোটা ক্রিকেটারের দিলেই কেবল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন তারা।

ক্যারিবীয় কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডস গত বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘বর্তমান সময়ে প্রত্যেকেই তাদের মূল্য বোঝে। ক্রিস গেইল, ডোয়াইন ব্রাভো, কিয়েরন পোলার্ড এবং ড্যারেন স্যামিদের মতো তারকাদের বাদ দিয়ে কোনো টুর্নামেন্ট রঙ হারাবে। তারা সবাই টি-টোয়েন্টির সেরা খেলোয়াড়।’

বিদ্যমান চুক্তিতে খেলোয়াড়দের চুক্তিতে স্বাক্ষর করা নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের বেধে দেয়া সময়ের বাকি আছে আর মাত্র একদিন। এখনও ম্যাচ ফি, স্পন্সরশীপ থেকে প্রাপ্ত অর্থ এবং প্রাইজমানির বণ্টন নিয়ে গেইলদের সঙ্গে কোনো সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেনি বোর্ড। তাই আগামী মাস থেকে ভারতে শুরু হতে যাওয়া টি-২০ বিশ্বকাপে ক্যারিবিয় তারকাদের না দেখার শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে খেলতে হতে পারে ২০১২ সালের চ্যাম্পিয়নদের।

ড্যারেন স্যামিদের দিক থেকে সমঝোতায় পৌঁছাতে গাফিলতি আছে একথা বলা যাবে না। সাত দিনের মধ্যে গত বৃহস্পতিবার দাবি-দাওয়ার বিস্তারিত উল্লেখ করে বোর্ডের সিইও মাইকেল মুরহেডের কাছে তৃতীয় ই-মেইল পাঠান অধিনায়ক স্যামি। এতে ম্যাচ ফি দ্বিগুণ করা, স্পন্সরশিপ থেকে প্রাপ্ত অর্থের অর্ধেক এবং প্রাইজমানির পুরোটা প্রাপ্তির দাবি পুনরায় ব্যক্ত করেন তিনি। তবে সমঝোতার জন্য বোর্ডের কাছ থেকে এখনও দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগ পরিলক্ষিত হয়নি।

এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার জন্য বোর্ডকে দায়ী করেন ভিভ রিচার্ডস। সাবেক ক্যারিবিয় ক্রিকেটার বলেন, ‘মাঝে মাঝে বোর্ড অনেক দেরিতে খেলোয়াড়দের সামনে চুক্তির বিষয়টি নিয়ে আসে। আমার মতে, এটা সমস্যার। হয়তো খেলোয়াড়রা ভালো-মন্দ বিচার করার দ্রুত সময় পান না। অথচ তাদেরকে তাড়াতাড়ি চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে বলা হয়।’

বিশ্বকাপের স্বার্থেই চলমান বিতর্কটির দ্রুত সমাধান চান তিনি। ভিভ রিচার্ডস বলেন, ‘প্রত্যেকেই পারস্পরিক বোঝাপোড়ার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে পারে। নতুবা বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টি এদের সবাইকে দেখার সুযোগ হারাবে।’

তবে মুরহেডকে পাঠানো স্যামির সর্বশেষ ই-মেইলে কিছুটা আশান্বিত হতে পারেন ক্রিকেট ভক্তরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক লিখেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিসেবে আমি দ্রুত সমস্যাটির সমাধান আশা করছি। যাতে বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতিতে আমরা নজর দিতে পারি। খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে আমি বলছি যে, আমরা খেলতে চাই এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে যথাসম্ভব প্রতিনিধিত্ব করব।’