১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শহীদ ড. জিসি দেবের বাড়ি রাজাকার পরিবারের দখলে

সালাম মশরুর, সিলেট অফিস ॥ বরেণ্য মানবতাবাদী দার্শনিক শহীদ বুদ্ধিজীবী ড. জিসি দেবের পৈত্রিক বাড়িটি স্বাধীনতার ৪৪ বছরেও দখলমুক্ত হয়নি। ’৭১ সালে পাকহানাদারদের হাতে নিহত জিসি দেবের বাড়ির একটি অংশ স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার পরিবারের লোকজন ভোগদখল করছে। প্রতিবছর স্বাধীনতা দিবস এবং বিজয় দিবস এলেই ড. জিসি দেবের বাড়িটি উদ্ধার নিয়ে ঢাক-ঢোল পেটানো হয়। বিভিন্ন ভাবে দাবি উত্থাপিত হয়। এর পরই তা ঝিমিয়ে যায়। ড. জিসি দেব স্মৃতি রক্ষা কমিটি নামে বিভিন্ন সংগঠনের জন্ম হলেও কাজের ক্ষেত্রে দৃশ্যমান কিছুই দেখা যায় না। বিয়ানীবাজার উপজেলার লাউতা গ্রামে ড. জিসি দেবের পৈত্রিক বাড়ির সিংহভাগ জমি বেদখল হয়ে আছে। দখলদাররা সেখানে বসতবাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছে দীর্ঘদিন থেকে।

জানা যায়, স্বাধীনতার পরবর্তী সময় স্থানীয় বাহাদুরপুর গ্রামের বাসিন্দা রইজ্জুদ আলী ওরফে রইয়া রাজাকার প্রথমে বাড়ির কিছু অংশ দখল করে নেয়। পরবর্তীতে বাড়ির অন্যান্য অংশও ধীরে ধীরে বেদখল হয়ে যায়। বর্তমানে ‘রইয়া রাজাকারের’ পুত্র ছমিক উদ্দিন দখলকৃত অংশে পাকা ঘর নির্মাণ করে বসবাস করছেন। অন্য অংশে ফনোই মালাকার ও গৌরাঙ্গচন্দ্র নামের দুজন ঘর নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন। বাড়িটির ভূমির মোট পরিমাণ ২.৪৭ শতক। চলমান জরিপে ১.৪৭ শতক স্থানীয় জিসি দেব স্মৃতি সংসদের নামে রেকর্ড করা হয়েছে এবং ১ একর ভূমি ভিপি খতিয়ানভুক্ত রয়েছে। অভিভাবকহীন হিসেবে পড়ে থাকার কারণে একটি মহল কাগজে কলমে লিজ দেখিয়ে ঘর নির্মাণ করে চিরতরে দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।

দখলকারী পরিবারের অভিভাবক স্বাধীনতাবিরোধী হওয়ার পর কিভাবে এই অনুমতি পায় তা নিয়ে জনমনে ক্ষোভ রয়েছে। বাড়িটি উদ্ধার করতে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়ভাবে আন্দোলন চলে এলেও এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নেয়নি প্রশাসন। কেবল তাই নয় ৭ কাঠা জমির ওপর ঢাকায় ড. জিসি দেবের আরেকটি বাড়ি রয়েছে যা বর্তমানে সম্পূর্ণ বেদখলে। ড. জিসি দেব বাড়িটি হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন থেকে লোন নিয়ে কিনেছিলেন। বাড়ির অর্ধেক অংশ পালিত পুত্র ও পালিত মেয়ের নামে এবং অর্ধেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে উইল করে যান। বাড়িটি দখলমুক্ত করতে আদালতে মামলা রয়েছে বলে জানা যায়।