২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গদখালিতে ১৩ কোটি টাকার ফুল বিক্রি

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ বসন্তবরণ ও বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে ১৩ কোটি টাকার ফুল বিক্রি করেছে যশোরের গদখালির ফুলচাষীরা। গত এক সপ্তাহে গদখালি ফুলবাজার থেকে এই ফুল সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। অনুকূল পরিবেশের কারণে এবার যেমন ফুলের ফলন হয়েছে, তেমনি দামও ভাল পেয়েছে ফুলচাষীরা। এতে গত বছর রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে হওয়া ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার স্বপ্ন দেখছে তারা।

যশোরের গদখালির ফুলচাষী ও ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে, যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালি, পানিসারা ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়নে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদিত হয় রজনীগন্ধা, গোলাপ, জারবেরা, গাঁদা, গ্লাডিওলাস, জিপসি, রকস্টিক, ক্যালেন্ডোলা, চন্দ্র মল্লিকাসহ বিভিন্ন ধরনের ফুল। চলতি ফুল মৌসুমে এ অঞ্চলের চাষীরা প্রায় দেড় হাজার হেক্টর জমিতে ফুলের আবাদ করেছেন। এ বছর অনুকূল আবহাওয়ায় ফুলের উৎপাদনও হয়েছে ভাল। এ কারণে ভালবাসা দিবস, বসন্ত দিবস ও ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে অন্তত ২০ কোটি টাকার ফুল বেচাকেনার প্রস্তুতি ছিল গদখালির ফুলচাষীদের।

গত বছর রাজনৈতিক অস্থিরতা, হরতাল-অবরোধের কারণে ফুলচাষী ও ব্যবসায়ীরা মারাত্মক ক্ষতির শিকার হয়েছে। সরবরাহ ব্যাহত হওয়ায় ক্ষেত আর বাজারে পচেছে লাখ লাখ টাকার ফুল। যাও বিক্রি হয়েছে তা পানির দরে। কিন্তু সে পরিস্থিতির পরিবর্তন হওয়ায় থার্টিফার্স্ট ও ইংরেজি নববর্ষকে ঘিরে ফুলের ভাল বেচাকেনা হয়েছে। আর বসন্ত ও ভালবাসা দিবস উপলক্ষে গদখালিতে ফুলের দাম ও চাহিদা দুটোই বেড়েছে।

অবৈধ সম্পর্কের জের ধরে খুন হয়েছেন ক্যাপ্টেন মহসিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ পোশাককর্মী নাজমা বেগমের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের জের ধরে খুন হয়েছেন লাইটারেজ জাহাজের ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ মহসিন (৫৫)। নাজমার ছেলে ঘাতক আরিফুল ইসলাম শনিবার দুপুরে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। আরিফুল জানায়, গত ১৫ জানুয়ারি মায়ের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে বিকেলে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। দুই দিন পর তার লাশ দশ টুকরো করে নদীতে ফেলে দেয়। ক্যাপ্টেন মহসিন নিখোঁজের এক মাস পর শুক্রবার বিকেলে নগরীর সিমেন্ট ক্রসিং থেকে ঘাতক আরিফুলকে আটক করে ইপিজেড থানা পুলিশ। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে পুলিশকে এসব তথ্য জানায়। আরিফুল জানায়, মায়ের সঙ্গে মহসিনের অবৈধ সম্পর্ক সে কখনোই মেনে নিতে পারেনি। ১৫ জানুয়ারি দুপুরে মহসিন তাদের বাসায় যায়।

নির্বাচিত সংবাদ