১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গোপালগঞ্জে নিরীহ দিনমুজুর ফতেহ আলী হত্যাকান্ডের বিচার দাবী

গোপালগঞ্জে নিরীহ দিনমুজুর ফতেহ আলী হত্যাকান্ডের বিচার দাবী

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালগঞ্জ ॥ গোপালগঞ্জে মাছ চুরির নাটক সাজিয়ে দরিদ্র দিনমজুর ফতেহ আলী সিকদার নামে (৪০) এক ব্যক্তিকে বেধরক মারপিট করে হত্যা করা হয়েছে। তার স্ত্রী এখন ৬ সন্তানকে নিয়ে পথে বসেছে। প্রতিপক্ষের হুমকি-ধমকিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে নিরীহ ওই পরিবারটি। প্রতিপক্ষের প্রভাব ও প্রতিপত্তির ঝন্্ঝনানিতে পুলিশও এব্যাপারে উদাসীন রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী ওই পরিবারসহ প্রতিবেশী ও এলাকার লোকজন। তারা অতিসত্ত্বর ফতেহ আলী হত্যার বিচার দাবি করেছেন। রবিবার সকালে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ননীক্ষীর গ্রামের পূর্ব-পাড়ায় ফতেহ আলীর বসতবাড়ির আঙ্গিনায় সংবাদ-সম্মেলন করে এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে তার স্ত্রী আতেকা বেগম ও সন্তানরা।

সংবাদ-সম্মেলনে আতেকা বেগম বলেন, বাড়ী-সংলগ্ন একটি যৌথ-মালিকানাধীন পুকুরের মাছ চুরির অপবাদ দিয়ে নির্মমভাবে তার স্বামী ফতেহ আলীকে হত্যা করা হয়েছে। গত ৩১ জানুয়ারি প্রকাশ্য দিবালোকে বেলা ১১টার দিকে মাছ চুরির অজুহাত দেখিয়ে প্রতিবেশী ওমর আলী শেখ, এস্কেন শেখ, আওলাদ শেখ ও ননীক্ষীর ইউনিয়ন বিএনপি-নেতা লিটন শেখ সহ ১৫-১৬ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল বাড়িতে হামলা চালিয়ে তার স্বামীকে গামছা দিয়ে ঘরের খুঁটির সাথে বেঁধে দু’কানে ও মাথাসহ সারা শরীরে বেধরক মারপিট করে। এ সময় তার ভাইপো শহীদ ঠেকাতে এলে তাকেও তারা ব্যাপক মারপিট করে। বাড়ীর অন্যান্য লোকজন বাঁধা দিতে এলে তাদের গুলির ভয় দেখানো হয়। একপর্যায়ে হামলাকারীরা ফতেহ আলীকে মৃত ভেবে ফেলে রেখে হুমকি-ধমকি দিয়ে চলে যায়। পরদিন ১ ফেব্রুয়ারি বাড়ীর লোকজনের সহযোগিতায় তার স্বামী ও শহীদকে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ফতেহ আলীর অবস্থা গুরুতর দেখে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সন্ধ্যায় সেখানে তার মৃত্যু ঘটে।

এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়ে ননীক্ষীর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মুজিবুর রহমান শেখ বলেছেন, ফতেহ আলী একজন দরিদ্র অসহায় দিন-মজুর। সে একজন নিরীহ মানুষ। তাকে এভাবে হত্যা করা হবে - এটা ভাবা যায় না। এটি একটি জঘন্য হত্যাকান্ড।