২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাঁশখালী রুটে ইয়াবা বহনের হাতিয়ার রোহিঙ্গা ও নারীরা

নিজম্ব সংবাদাতা, বাঁশখালী ॥ সমাজের মরণব্যাধি ইয়াবা ট্যাবলেট পাচারকারীরা এখনো সক্রিয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখকে ফাকি দিয়ে প্রতিদিন দেদারছে প্রবেশ করছে ইয়াবা। পুলিশ ইয়াবা পাচার রোধে যতই কৌশল অবলম্বন করে তার চেয়ে দুই ধাপ এগিয়ে ভিন্ন কৌশলে পাচারে নেমেছে ইয়াবা সিন্ডিকেট। মায়ানমার সীমান্ত হয়ে টেকনাফ-কক্সবাজার-চট্টগ্রামের বিকল্প সড়ক বাঁশখালী রুটে ইয়াবা বহনের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী ও নারীদের। বাঁশখালী উপজেলাটি বঙ্গোপসাগর সমুদ্র উপকূলবর্তী হওয়ায় উপকূলীয় ইউনিয়ন ছনুয়া, গন্ডামারা, বাহারছড়া, প্রেমাশিয়া, ও খানখানাবাদের সমুদ্র উপকূল হয়েও প্রায়শ ইয়াবা বাঁশখালীতে আনে কতিপয় প্রভাবশালীরা। যারা আইনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিন বাঁশখালীর প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইয়াবা বিক্রি ও পাচার করে। বাঁশখালীর ইয়াবা পাচারের প্রধান সিন্ডিকেট পৌর সদরের ৫ স্বর্ণ কারীগরকে চি‎িহ্নত করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশের এক কর্মকর্তা।