২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টাঙ্গাইলের মধুপুরে ইউপি নির্বাচন নিয়ে নানা শঙ্কা

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল ॥ টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে সম্ভাব্য প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে নানা শঙ্কা দেখা দিয়েছে। গেজেট প্রকাশের পর বর্তমান ইউনিয়ন পরিষদগুলোর পুনর্বিন্যাসের বিষয়টি এখনও সম্পন্ন হয়নি। পৃথক হয়নি ভোটার তালিকাও। নতুন ইউনিয়নের ভবন তৈরির উদ্যোগ নেই। ওই ইউনিয়নগুলোর নির্বাচিতরা কোথায় বসবেন এমন নানা প্রশ্নে এ শঙ্কা সংশ্লিষ্টদের মধ্যে।

জানা যায়, গত ২০০৬ সালে মধুপুর ও ধনবাড়ী আলাদা উপজেলা হয়ে যাওয়ার পর মধুপুরের ভাগে ৬টি ইউনিয়ন ছিল। গত ইউপি নির্বাচনে ওই ৬ ইউনিয়নে ৬ জন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবার হিসেব পাল্টে গেছে। ৩টি বড় ইউনিয়ন ভেঙ্গে হয়েছে ৮টি ইউনিয়ন। উপজেলার অরণখোলা ভেঙ্গে হয়েছে অরণখোলা ইউনিয়ন, বেরীবাইদ ইউনিয়ন ও কুড়াগাছা ইউনিয়ন। শোলাকুড়িকে করা হয়েছে শোলাকুড়ি ও ফুলবাগচালা ইউনিয়ন এবং আউশনারা হয়েছে আউশনারা, মহিষমারা ও কুড়ালিয়া ইউনিয়ন। পুনর্গঠিত এসব ইউনিয়ন ছাড়াও মির্জাবাড়ী, আলোকদিয়া ও গোলাবাড়ী ইউনিয়ন মিলে বর্তমানে মধুপুর ১১টি ইউনিয়ন। নতুন ৫ ইউনিয়নের ভবন তৈরি হয়নি বা সে বিষয়ে এখনো কোন নির্দিষ্ট উদ্যোগের কথা বলতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা। নির্বাচিতরা কোথায় বসবেন সে বিষয়টি পুরোপুরি অনিশ্চিত। এলাকা ম্যাপিং করে ভোটার তালিকা পৃথক করা হয়নি। ওয়েবসাইটে আগের ৬ ইউনিয়নের তথ্যই পাওয়া যাচ্ছে। সেখানে পুনর্বিন্যাস করা নতুন ইউনিয়নের নাম নেই। অথচ গত বছর ৬ আগস্ট (সংশোধিত) গেজেট প্রকাশিত হয়েছে। গত ৬ মাসে এলাকা চিহ্নিত, ভোটার তালিকার পুনর্বিন্যাস না করে মার্চ মাসে মধুপুরের ইউনিয়নগুলোর নির্বাচন আদৌ সম্ভব কিনা। এমন প্রশ্ন উঠেছে।