২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকুন্দিয়ায় তালাক নামায় স্বাক্ষর না করায় গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ ॥ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলায় তালাক নামায় স্বাক্ষর না করায় হালিমা খাতুন (২৫) নামের এক গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার রাতে উপজেলার চরপাড়াতলা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। বর্তমানে নির্যাতিত ওই গৃহবধূ পাকুন্দিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, গত নয় মাস আগে উপজেলার চরপাড়াতলা গ্রামের মৃত আবদুল হেমিকের ছেলে আবদুল আউয়ালের সঙ্গে স্থানীয় শ্রীরামদী গ্রামের সাফির উদ্দিনের মেয়ে হালিমা খাতুনের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর স্বামী তার স্ত্রীকে পিতার নিকট থেকে নগদ টাকা এনে দিতে অত্যাচার নির্যাতন শুরু করে। সম্প্রতি গৃহবধূকে হত্যার জন্য তার স্বামী পানির পাত্রে বিষ মিশিয়ে রাখে। বিষয়টি স্ত্রী বুঝতে পেরে প্রতিবাদ করলে স্বামী এতে চরম ক্ষিপ্ত হয়। এর জেরে শনিবার রাতে স্বামী আবদুল আউয়াল ও তার ছোট ভাই কাঞ্চনসহ অন্যরা ওই গৃহবধূকে ঘরে আটক করে তালাক নামায় স্বাক্ষর করতে বলে। এতে গৃহবধূ রাজি না হওয়ায় স্বামী ও দেবর গংরা তাকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি হাসান আল মামুনের সঙ্গে রবিবার দুপুরে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, লিখিত অভিযোগ না পাওয়ায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।