২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বেনাপোল বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি কমেছে

আবুল হোসেন, বেনাপোল থেকে ॥ দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোলে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বছরের প্রথম ৭ মাসে ৯৪ হাজার ৫০৫ দশমিক ৮৫ মেট্রিক টন পণ্য কম আমদানি হয়েছে। গত ২০১৪-১৫ অর্থবছরের ৭ মাসে ৬ লাখ ৮৬ হাজার ৭২৪ দশমিক ৭৭ মেট্রিক টন পণ্য আমদানি করা হয়। আর চলতি অর্থবছরের ৭ মাসে পণ্য আমদানি হয়েছে ৫ লাখ ৯২ হাজার ২১৮ দশমিক ৯২ মেট্রিক টন।

জানা গেছে, ২০১৫ সালের জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসজুড়ে দেশে ছিল রাজনৈতিক অস্থিরতা। যে কারণে বেনাপোল বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি কমে যায়। এ ছাড়া কাস্টমসের নানা হয়রানির ফলে বেনাপোল দিয়ে আমদানি কমতে শুরু করেছে। আমদানিকৃত পণ্যের মূল্য বাড়িয়ে দেয়া, প্রতিটি কেমিক্যাল পণ্য টেস্টে পাঠানো, দিনের পর দির ফাইল আটকে রাখা, অতিরিক্ত অর্থ আদায়সহ নানাবিধ হয়রানির কারণে আমদানিকারকরা এ বন্দর থেকে মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

তবে কাস্টম কর্মকর্তারা বলছেন, আগে এই বন্দর দিয়ে ব্যবসায়ীরা শুল্ক ফাঁকি দিত। এখন সেই সুযোগ নেই। যে কারণে অনেক ব্যবসায়ী পণ্য আমদানি কমিয়ে দিয়েছেন। বিশেষ করে কমিশনার এএফএম আব্দুল, রাহ খান, অতিরিক্ত কমিশনার ফিরোজ উদ্দিন ও যুগ্ম কমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান বেনাপোল কাস্টমস হাউসে যোগদানের পর পরই শুল্ক ফাঁকিবাজরা গা-ঢাকা দেয়ায় আমদানি কমে গেছে বলে ব্যবসায়ীরা জানান। বেনাপোল বন্দরের পরিসংখ্যান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চলতি অর্থবছরের জুলাই মাসে আমদানি পণ্যের পরিমাণ ছিল ৮৩ হাজার ২৯৭ দশমিক ৯৪ মেট্রিক টন, আগস্ট মাসে ৯৮ হাজার ২৫১ দশমিক ৬৭ মেট্রিক টন, সেপ্টেম্বর মাসে ৭১ হাজার ৮৬৯ দশমিক ৯৬ মেট্রিক টন,

অক্টোবর মাসে ৭৫ হাজার ৪৩৪ দশমিক ২৩ মেট্রিক টন, নবেম্বর মাসে ৮১ হাজার ৩৮৯ দশমিক ৭০ মেট্রিক টন, ডিসেম্বর মাসে ৯০ হাজার ৬০৬ দশমিক ৯৮ মেট্রিক টন এবং জানুয়ারি মাসে ৯১ হাজার ৩৬৮ দশমিক ৪৪ মেট্রিক টন পণ্য আমদানি করা হয়েছে। ২০১৪-১৫ অর্থবছরের একই সময়ে পণ্য আমদানি করা হয়েছিল ৬ লাখ ৮৬ হাজার ৭২৪ দশমিক ৭৭ মেট্রিক টন পণ্য। বেনাপোল সিএ্যান্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন বলেন, আগে বেনাপোল দিয়ে গার্মেন্টস শিল্পের অনেক ধরনের মাল আমদানি হতো।