২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নেত্রকোনায় সাহিত্য উৎসব

নেত্রকোনায় সাহিত্য উৎসব

নিজস্ব সংবাদদাতা, নেত্রকোনা ॥ ‘হরফের নূপুরে নাচি আমরা সবাই’ স্লোগানে পয়লা ফাল্গুন শনিবার নেত্রকোনা শহরের পুরাতন কালেক্টরেট চত্বরের মুুক্তমনা মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘বিংশতম বসন্তকালীন সাহিত্য উৎসব। এ উপলক্ষে খালেকদাদ চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কার প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নেত্রকোনা সাহিত্য সমাজ আয়োজিত উৎসবে এ বছর খালেকদাদ চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন কবিতায় মোহাম্মদ রফিক ও কথা সাহিত্যে জাকির তালুকদার। সকাল ১০টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন করেন কবি ড. তরুণ কান্তি শিকদার। এরপর বের করা হয় বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা। সাড়ে ১০টায় উদীচীর শিল্পীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় বসন্ত বন্দনা ও তবলা লহরী। এছাড়াও দিনের বিভিন্ন সময়ে অনুষ্ঠিত হয় শিশুদের চিত্রাঙ্কন, বংশীবাদক মুখলেছুর রহমানের বাঁশির মূর্ছনা, বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা কবি-ছড়াকারদের স্বরচিত কবিতা ও ছড়া পাঠ এবং সাহিত্য আড্ডা। সন্ধ্যা ৬টায় অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা ও খালেকদাদ চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কার প্রদান। ‘বাংলা কবিতার পথ ও কবি মোহাম্মদ রফিক’ এবং ‘কথা সাহিত্যের ভাষা ও জাকির তালুকদার’ বিষয়ক প্রবন্ধ পাঠ করেন অধ্যাপক সরোজ মোস্তফা। প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনা করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মোঃ আলী আকবর। নেত্রকোনা সাহিত্য সমাজের সভাপতি অধ্যাপক কামরুজ্জামান চৌধুরীর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেনÑ কবি ড. তরুণ কান্তি শিকদার, প্রাবন্ধিক অধ্যাপক যতীন সরকার, কবি মোহাম্মদ রফিক, কথা সাহিত্যিক জাকির তালুকদার, কবি মামুন খান, মানস সান্যাল ও সাইফুল্লাহ এমরান প্রমুখ। সম্মাননা পাঠ করেন আব্দুর রাজ্জাক ও পল্লব চক্রবর্তী। আলোচনার পর কবি মোহাম্মদ রফিক ও কথা সাহিত্যিক জাকির তালুকদারের হাতে পুরস্কারের ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয়। এরপর শতদল সাংস্কৃতিক একাডেমি পরিবেশন করে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সবশেষে প্রদর্শিত হয় সেন্টু রায় নির্মিত শহীদ জননী জাহানারা ইমামের জীবনভিত্তিক প্রামাণ্যচিত্র ‘মধুর আমার মায়ের হাসি’। নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কবি-সাহিত্যিক-লেখকরা বরাবরের মতো এবারও উৎসবে যোগ দেন।