২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সন্ত্রাসীদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে স্বামী-স্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ ‘আমি এখন চরম বিপদের মধ্যে আছি। আসামি দুলাল এলাকায় ঘোরাঘুরি করছে। ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। পুলিশ আসামি ধরছে না। ঘরবাড়ি ছেড়ে বাপের বাড়ি চলে আসতে বাধ্য হয়েছি। জীবন বাঁচাতে আমার স্বামীও পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এমনকি আমার আল্ট্রাস্নোগ্রাফির রিপোর্ট হাসপাতাল থেকে রহস্যজনক গায়েব হয়ে গেছে।...’ বিয়ের ৯ বছর পর অন্তঃসত্ত্বা হয়েও সন্ত্রাসীদের মারপিটের কারণে মা হতে পারেননি বাগেরহাট পৌরসভার হাড়িখালী পশ্চিমপাড়ার গৃহবধূ ডালিয়া নওশিন পূরবী। কান্নাজড়িত কণ্ঠে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি। রবিবার বাগেরহাট প্রেসক্লাবে এসে পূরবী সংবাদ সন্মেলন করেন। দীর্ঘদিন উত্ত্যক্ত করার পর গত ৬ ফেব্রুয়ারি সন্ত্রাসী দুলাল আকন সহযোগীদের নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। মিনতি সত্ত্বেও অন্তঃসত্ত্বা পূরবীর পেটের ওপর লাথি ও কিলঘুষি মারে। এই নির্যাতনে দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা এ গৃহবধূর রক্তক্ষরণে গর্ভপাত ঘটে। তাকে গুরুতর অবস্থায় বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিষয়টি জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে উত্থাপিত হলে পুলিশ সুপার নিজামুল হক মোল্যা তাৎক্ষণিক বাগেরহাট সদর থানার ওসিকে মামলা নেয়ার নির্দেশ দেন। এরপর দুলাল আকনসহ আট জনের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা বাগেরহাট সদর মডেল থানায় দায়ের করা হয়। কিন্তু আজও পর্যন্ত পুলিশ এ মামলার আসামিদের আটক করতে পারেনি বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে নির্যাতিত ডালিয়া নওশিন পূরবীর স্বামী, বাবা, বোনসহ আত্মীয়স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।