২০ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পরাজয়কে দুর্ভাগ্যজনক বললেন কোচ দ্রাবিড়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ পুরো টুর্নামেন্টেই দুর্দান্ত খেলেছিল ভারত অনুর্ধ ১৯ দল। শিরোপা জয়ের অন্যতম ফেবারিটও ছিল তারাই। কারণ প্রতিপক্ষদের প্রতি ম্যাচেই দুমড়ে-মুচড়ে দিয়েছে তারা। কিন্তু একটি ম্যাচই নিজেদের সেরা নৈপুণ্যটা দেখাতে পারেনি তিনবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনুর্ধ ১৯ দলের বিপক্ষে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করেছে ভারতীয় যুবারা। কিন্তু একটা খারাপ দিন ক্রিকেটে আসতেই পারে। পরাজয়ের পর সেই শিক্ষাটা পেয়েছে ভারতীয় যুবারা। এমনটাই জানালেন ভারতীয় অধিনায়ক ঈষাণ কিশান। রবিবার ফাইনালের পর মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। দারুণ হতাশ হয়েছেন দলের কোচ সাবেক ভারতীয় ব্যাটিংয়ের নির্ভরতা প্রতীক রাহুল দ্রাবিড়ও। তিনি মনে করেন টানা সাফল্যেও মধ্যে থাকা দলটির হেরে যাওয়া দুর্ভাগ্যজনক।

পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ ব্যাটিং নৈপুণ্য দেখিয়েছেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু ফাইনালে বিপর্যয়ে পড়ে। টস হারটাও বড় ভূমিকা পালন করেছে। এ বিষয়ে ভারতীয় অধিনায়ক কিশান বলেন, ‘টস হারাটা তেমন খারাপ বিষয় নয়। আমরা প্রথমে ব্যাট করতে নেমেছিলাম ভাল একটি সংগ্রহ গড়ার জন্য। যদি আমরা ২৫০-২৬০ করতে পারতাম সেটা যথেষ্টই হতো। আমরা পরস্পরের মধ্যে আলোচনা করেছিলাম (ইনিংস বিরতির মধ্যে) যে এমন পরিস্থিতিতে আগেও পড়েছিলাম এবং জিতেছি। অনেক পরিশ্রম করেই আমরা ফাইনালে উঠেছিলাম এবং সে কারণেই নিজেদের মধ্যে এই মনোভাবটা ছিল যে জেতার জন্য কোন চেষ্টা করাই বাকি রাখব না। পরিকল্পনা ছিল যতটা সম্ভব নিজেদের শতভাগ উজাড় করে চেষ্টা করার।’ পুরো টুর্নামেন্টে সরফরাজ খান দারুণ ব্যাটিং করেছিলেন। তার ওপর ভারতীয় দলের নির্ভরতাও বেড়ে গিয়েছিল। এদিনও সরফরাজ ছাড়া আর কেউ ভাল করতে পারেননি। এ বিষয়ে কিশান বলেন, ‘বিষয়টা এমন নয় যে শুধু তার ওপরই আমরা আস্থা রেখেছিলাম। তিনি ভাল ব্যাটসম্যান এবং ভাল ফর্মেও ছিলেন। কিন্তু এদিন ব্যাট করাটা বেশ কঠিন ছিল। কিন্তু আমরা এই কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে উঠেছিলাম।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলিংটা যেমন ভাল হয়েছে কিশান মনে করেন ভারতীয় বোলাররাও দারুণ বোলিং করেছে। এ বিষয়ে ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘তারা সঠিক অবস্থানে বল ফেলেছে এবং দারুণ বোলিং করেছে। আমাদের ভাল জুটি প্রয়োজন ছিল। কিন্তু সেটা আমরা পারিনি। নয় তো ফলাফল অন্যরকম হতে পারত। আমাদের বোলররাও সঠিক অবস্থানেই বল ফেলেছেন। ফিল্ডিংয়ে আমরা শুরুর দিকে দারুণ করেছি। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ কিছু ক্যাচ ছেড়েছি। তাই আর জিততে পারিনি।’ তবে এমন পরাজয়ের পরও ভবিষ্যতের জন্য কিছু শিক্ষা পেয়েছে ভারতীয় দল। টুর্নামেন্টের সেরা দল হয়েও পরাজয় আসতে পারে সেটাই বড় শিক্ষা। এ বিষয়ে কিশান বলেন, ‘আমরা প্রচুর শিখলাম। দ্রাবিড় স্যার আমাদের সঙ্গে তার অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করেছেন। সেটা আগামীতে ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের জন্য কার্যকর হবে। আমরা কি ভুল করেছি সেটা এখানে শিখেছি যা আর কখনও হবে না। খুব ভাল ক্রিকেট খেলেও যখন ফাইনালে হারতে হয় তখন অবশ্যই কষ্ট লাগে। আমার মনে হয় আমরাই এখানে সেরা দল ছিলাম, কিন্তু এ পরাজয়ের অভিজ্ঞতাটা বড় শিক্ষা হয়ে থাকল।’ এমনটাই মনে করছেন কোচ দ্রাবিড়ও। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমি খুব হতাশ। ছেলেদের জন্য আমি মনে করি সবে শুরু। সব অভিজ্ঞতারই প্রয়োজন আছে। দল হিসেবে আমরা অনেক সাফল্যের স্বাদ নিয়েছি। টুর্নামেন্টে এই একটা ম্যাচই আমরা হেরেছি। ছেলেরা নিজেদের সবচেয়ে বড় ম্যাচটা খেলে হেরেছে এটা দুর্ভাগ্যজনক।