২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অভিবাসী প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ গ্রিক দ্বীপে

ইজিয়ান সাগরে গ্রিক দ্বীপ কসে শরণার্থী ও অভিবাসী প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস ও স্টান গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে দেশটির দাঙ্গা পুলিশ। দ্বীপবাসীদের আশঙ্কা এই কেন্দ্র নির্মাণের ফলে পর্যটন খাত ক্ষতিগ্রস্ত হবে। প্রায় এক হাজার স্থানীয় লোক পাইলি গ্রাম থেকে প্রস্তাবিত কেন্দ্র পর্যন্ত মিছিল করে যায়। একটি পরিত্যক্ত সামরিক ঘাঁটিতে এই কেন্দ্রটি নির্মাণ করা হচ্ছে। খবর টেলিগ্রাফের।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনুরোধ তুর্কি উপকূলমুখী দ্বীপগুলোর একটিতে পাঁচটি হটস্পটের একটি নির্মাণ করছে গ্রীস। ইজিয়ান সাগর পার হয়ে আসা অভিবাসী স্রোত আরও নিয়ন্ত্রিত করতে এই কেন্দ্রগুলো নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছে। এরফলে কর্মকর্তারা অর্থনৈতিক অভিবাসীদের থেকে সিরীয় ও অন্য শরণার্থীদের আলাদা করতে পারবেন। এই বিক্ষোভ প্রথমে শান্তিপূর্ণই ছিল। তবে কেন্দ্রের পাহারায় থাকা পুলিশ লাইন অতিক্রম করে একদল দ্বীপবাসী এগিয়ে যেতে চাইলে বিশৃঙ্খলা শুরু হয় এবং পুলিশ তাদের ওপর স্টান গ্রেনেড ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে।

ইসরাইলী সৈন্যের গুলিতে তিন কিশোরসহ ৫ ফিলিস্তিনী নিহত

দখলকৃত পশ্চিম তীর ও জেরুজালেমে রবিবার ইসরাইলী নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে তিন কিশোরসহ পাঁচ ফিলিস্তিনী নিহত হয়েছে। খবর এএফপির।

ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছে, তাদের লক্ষ্য করে হামলা চালানোর সময় এসব ফিলিস্তিনীকে হত্যা করা হয়। গত অক্টোবর মাস থেকে ফিলিস্তিনীরা ইসরাইলীদের লক্ষ্য করে ছুরিকাঘাত, বন্দুক ও তাদের গায়ের ওপর গাড়ি উঠিয়ে দেয়ার মতো হামলা চালিয়ে আসছে। এরই ধারবাহিকতায় সর্বশেষ এসব হামলা চালানোর চেষ্টা করা হয়। সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রথম ঘটনায় ১৫ বছর বয়সী দুই ফিলিস্তিনী জেনিন নগরীর পশ্চিমাঞ্চলে ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনীর একটি টহল দলকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। জবাবে সৈন্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালালে তারা নিহত হয়।

ব্ল্যাক আউট প্রতিবাদ

ব্রিটিশ ফিল্ম এ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউটের এ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেন হলিউড অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। পুরস্কারে এখনও গায়ের রঙের জোরেই পছন্দের তালিকার উপরের দিকে থাকেন সাদা চামড়ার অভিনেতারা- অভিযোগ ‘ব্ল্যাক আউট’ প্রতিবাদীদের। ফেসবুকেও তারা লেখেন- একুশ শতকেও বদলায়নি বর্ণবিদ্বেষের চেহারাটা। -আজকাল

টাইটানিক ডুবি থেকে বেঁচে চ্যাম্পিয়ন

আটলান্টিক মহাসাগরে ১৯১১ সালে টাইটানিক জাহাজ ডুবির পর রিচার্ড নরিস উইলিয়ামস ভেসে ছিলেন বরফ গলা অসম্ভব ঠা-ায়। উদ্ধারকারী দল একেবারে শেষ মুহূর্তে এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে অবশ্য তিনি পায়ের শক্তি হারিয়ে ছিলেন। ডাক্তাররা বলেছিলেন, নরিসের পা দুটো বাদ দিতে হবে। কিন্তু নরিস রাজি হননি। কঠোর পরিশ্রম করে যুক্তরাষ্ট্রের টেনিস ওপেন ও উইম্বলডন জেতেন তিনি। ১৯৬৮ সালে মারা যাওয়ার সময় তিনি বলেছিলেন, ‘আমায় আর বাঁচিও না।’ -জি নিউজ