১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে ৩১৫ কোটি টাকায় ৭৮৮ ফ্ল্যাট

  • থাকবেন সরকারী চাকরিজীবীরা

হামিদ-উজ-জামান মামুন ॥ রাজধানীর মালিবাগ ও মিরপুরে সরকারী চাকুরেদের জন্য তৈরি হচ্ছে ৭৪৪টি ফ্ল্যাট। এর মধ্যে মালিবাগে হবে ৪৫৬টি এবং মিরপুরে ২৮৮টি ফ্ল্যাট তৈরি হবে। এগুলো তৈরিতে মোট ব্যয় হবে ৩১৪ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। এ সংক্রান্ত দুটি পৃথক প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে। এর মাধ্যমে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসন সমস্যার সমাধান ও তাদের কাছ থেকে উন্নত সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। প্রস্তাবিত প্রকল্প দুটি প্রক্রিয়াকরণ শেষে আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

প্রকল্প দুটির দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য এস এম গোলাম ফারুক পরিকল্পনা কমিশনের মতামত দিতে গিয়ে বলেছেন, ফ্ল্যাট তৈরির এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে সরকারী কর্মচারীদের নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর আবাসনের সুযোগ সৃষ্টি হবে, যা পরোক্ষভাবে তাদের কার্যক্রম সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখবে। তাছাড়া প্রকল্পটির আওতায় নির্মাণ কাজের সময় কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে। সুতরাং পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অনুযায়ী আবাসিক সঙ্কট নিরসন, সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও কর্মসংস্থানের সঙ্গে প্রকল্পের উদ্দেশ্য ও প্রস্তাবিত কার্যক্রম সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়ায় একনেকে অনুমোদন যোগ্য। সূত্র জানায়, সরকারী চাকরিজীবীদের ঢাকা শহরে আবাসন সমস্যা একটি প্রকট সমস্যা। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ আবাসন পরিদফতর চাহিদা অনুযায়ী আবাসন সমস্যার সমাধান করতে পারছে না। ফলে বাধ্য হয়ে সরকারী কর্মকর্তারা অধিকাংশই তাদের ক্ষমতার বাইরে অধিক মূল্যে ব্যক্তি মালিকানাধীন নিম্নমানের ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন। এতে তাদের অর্থনৈতিক ও বিভিন্ন সামাজিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছেন, যা তাদের কর্মদক্ষতা হ্রাস করছে। বর্তমানে ঢাকায় কমর্রত সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন ১ লাখ ৪৮ হাজার ৯১৫ জন। এর মধ্যে প্রায় ৯ শতাংশ অর্থাৎ ১৩ হাজার ৫২টি সরকারী আবাসনের ব্যবস্থা রয়েছে। এ ছাড়া গণপূর্ত অধিদফতরের প্রায় ৫ হাজার ৬২৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী ঢাকায় কর্মরত রয়েছেন। তার মধ্যে মাত্র ৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ অর্থাৎ ৩৭৫ জন চাকরিজীবীর জন্য সরকারীভাবে আবাসনের ব্যবস্থা রয়েছে।

সরকারী আবাসন পরিদফতরের পরিকল্পনার অনুযায়ী, ঢাকা শহরে সরকারী আবাসন সমস্যা সমাধানের জন্য বিদ্যমান ১৩ হাজার ৫২টি ফ্ল্যাট হতে স্বল্প মেয়াদে ২০১৫ সালের মধ্যে ১৬ হাজার ৩২০টিতে, মধ্য মেয়াদে ২০১৭ সালের মধ্যে ১৬ হাজার ৯৬৮টিতে এবং দীর্ঘ মেয়াদে ২০১৯ সালের মধ্যে ১৮ হাজার ২৭৬টিতে উন্নীতকরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, রাজধানীর মালিবাগের গণপূর্ত অধিদফতরের গোডাউন কমপ্লেক্সের (আবুজর গিফারি কলেজের পাশে) মধ্যে চার দশমিক শূন্য পাঁচ একর জায়গায় নির্মাণ করা হবে ৪৫৬টি ফ্ল্যাট। এতে ব্যয় হবে ১৯৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। এ প্রকল্পের আওতায় দুটি বিশতলা ভবনে আটশ বর্গফুটের ২২৮টি ফ্ল্যাট এবং দুটি বিশ তলা ভবনে ৬৫০ বর্গফুটের ২২৮টি ফ্ল্যাট তৈরি করা হবে।

অন্যদিকে সরকারী চাকুরেদের জন্য রাজধানীর মিরপুরে নির্মিত হচ্ছে ২৮৮টি আবাসিক ফ্ল্যাট। ফ্ল্যাটগুলো তৈরিতে মোট ব্যয় হবে ১২০ কোটি ১৪ লাখ টাকা। অব্যবহৃত, অল্প ব্যবহৃত জমিতে বহুতল আবাসিক ভবন নির্মাণ করে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসিক সঙ্কট সমাধানের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে মিরপুর-৬ নং সেক্টরে অবস্থিত গণপূর্ত অধিদফতরের ই/এম ডিভিশনের স্টাফ কোয়ার্টারের পাকা, সেমি পাকা ও টিনশেড ভবন ভেঙে বহুতল ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। গণপূর্ত অধিদফতরের ই/এম-৮ স্টাফ কোয়ার্টার কলোনির মধ্যে কিছু তিন তলা, এক তলা, সেমি পাকা ও টিনশেড ভবন রয়েছে। এগুলোতে ১৫০ জন কর্মচারী বাস করছেন। অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের অনেক অফিস ও আবাসিক কার্যক্রম সরকারী জমিতে পরিচালিত হচ্ছে। গণপূর্ত অধিদফতরের স্টাফ কোয়ার্টারের দুই দশমিক ৪০ একর জায়গায় দুটি ১৩তলা ভবনে প্রতিটি ৮০০ বর্গফুটের ১৫০টি, একটি ১৩তলা ভবনে প্রতিটি ৬৫০ বর্গফুটের ৭২টি এবং একটি ১২তলা ভবনে প্রতিটি এক হাজার ফুট আয়তনের ৬৬টি অর্থাৎ মোট ২৮৮টি ফ্ল্যাট নির্মাণের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।