১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লঙ্কা বধে ভারতের হাসি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টি২০ বিশ্বকাপ সামনে রেখে উড়ছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ৩-০তে ‘হোয়াইটওয়াশ’ কারার পর এবার ঘরের মাটিতে শ্রীলঙ্কাকে ২-১এ উড়িয়ে দিল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। বিশাখাপত্তমে সিরিজ নির্ধারণী টি২০তে ৯ উইকেটের বড় জয় পেল স্বাগতিকরা। ১৮ ওভারে প্রতিপক্ষকে ৮২ রানে গুড়িয়ে দেয়ার পর ১৩.৫ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ের পথে মাত্র ৮ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। এ জয়ে টি২০ র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রাখল ভারত। আগামী ৮ মার্চ নিজ অঙ্গনে শুরু হতে যাওয়া টি২০ বিশ্বকাপে এই সাফল্য দলকে আত্মবিশ্বাস যোগাবে বলে মনে করেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’ ধোনি। সব মিলিয়ে ক্রিকেটের মোড়লদের সময়টা ভালই যাচ্ছে।

ভারতীয় বোলিং তোপে শ্রীলঙ্কার হয়ে দুই অঙ্কের দেখা পেয়েছেন কেবল দাসুন শানাকা (১৯) ও থিসারা পেরেরা (১২)। ম্যাচে অশ্বিনের বোলিং ফিগার ৪-১-৮-৪! রোহিত শর্মা (১৩), শিখর ধাওয়ান (৪৬) ও অজিঙ্কা রাহানের (২২) ব্যাটে আয়েশী জয় তুলে নেয় ভারত। সমীকরণটা এমন ছিল যে, যদি ভারত ২-১এ, অথবা ৩-০তে সিরিজ জিতে তবেই শীর্ষস্থান অক্ষুণœœ থাকবে। হারলে সাতে নেমে যাবে। অন্যদিকে সিরিজ খোয়ালেও এক ম্যাচের সাফল্যে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে দিনেশ চান্দিমালের শ্রীলঙ্কা। ‘আমরা তিনটা ম্যাচই জিততে চেয়েছিলাম। তবে শ্রীলঙ্কা শক্তিশালী। ছোট্ট ফরমেটে আমরা সবসময়ই ভাল। এই সাফল্য বিশ্বকাপে মনোবল বাড়িয়ে দেবে।’ ম্যাচ শেষে বলেন ভারত অধিনায়ক ধোনি। অস্ট্রেলিয়া সাফল্য, র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান এই সব সমর্থকদের প্রত্যাশা বাড়িয়ে দেবে বলেও মনে করেন তিনি। এ জন্য ম্যাচ বাই ম্যাচ এগোতে চান। ধোনি আরও যোগ করেন, ‘আমি জানি, আমাদের ঘিরে সবার প্রত্যাশা অনেক। কিন্তু দলকে বলব, কেউ যাতে চাপ না নেয়। বিশ্বকাপে আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ ভাবতে চাই।’ সুপার অশ্বিনের প্রশংসা করেন অধিনায়ক, ‘অশ্বিন অসাধারণ বল করছে, অন্যরাও সাপোর্ট দিয়েছে। সবাই জয়ের জন্য সেরাটা দিচ্ছে। দল যে মানসিকতা নিয়ে খেলছে, বিশ্বকাপে সেটাই ধরে রাখতে হবে।’ সময় ভাল গেলে যা হয়। কিছুদিন আগে যে ধোনির পারফর্মেন্স ও নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল, এই সিরিজে সেই তিনিও ছিলেন উজ্জ্বল। ব্যাটিং খুব একটা করতে হয়নি। উইকেটের পেছনে চমৎকার করেছেন ভারতের দু-দুটি বিশ্বজয়ের (২০০৭ টি২০ ও ২০১১ ওয়ানডে) কা-ারি। স্ট্যাম্পিংয়ে ইতোমধ্যে রেকর্ড গড়েছেন। সব ধরনের ক্রিকেটে তার স্ট্যাম্পিং সংখ্যা ১৪২। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাত্র ০.১ সেকেন্ডে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানকে আউট করেছিলেন।

তেমনি এদিন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অশ্বিনের বলে তিলকারতেœ দিলশানকেও স্ট্যাম্পিং করেন। এ নিয়ে সতীর্থ রবিন্দ্র জাদেজা ধোনিকে যে সার্টিফিকেট দিয়েছেন, সেটি লুফে নিয়েছে সামাজিক মাধ্যম। চলছে আলোচনা। জাদেজা রীতিমতো আইনস্টাইনের আলোর গতি তত্ত্ব টেনে বলেন, ‘আলোর গতির চেয়েও ধোনির স্ট্যাম্পিং দ্রুত!’ সিরিজ জয়ের দিন ম্যাচ শেষে অধিনায়ককে সতীর্থদের সঙ্গে খুনসুটি করতেও দেখা গেছে। এটা ভারতের জন্য দারুণ স্বস্তির। ২০০৭ টি২০ বিশ্বকাপের প্রথম আসরেই বাজিমাত করেছিল ধোনির ভারত। ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতলেও মাঝে টি২০তে সুবিধা করতে পারেনি। এবার ঘরের মাটিতে তাই সমর্থকদের চাওয়া অনেক।