১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের কার্যক্রম জোরদার করা নিয়ে আলোচনা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে একটি বৈঠক বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী বলেন, শক্তিশালী গণতন্ত্রের জন্য সুস্থ গণমাধ্যমের বিকাশ নিশ্চিত করা দরকার এবং সেজন্য গণমাধ্যমের কর্মীদের আর্থিক নিরাপত্তাও দরকার। গণমাধ্যমের সঙ্গে যুক্ত নোয়াব এবং এ্যাটকো এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। এ দু’টি গুরুত্বপূর্ণ সংগঠনের সদস্যদের গণমাধ্যম ছাড়াও অন্য ব্যবসায় এবং শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তাঁরা চাইলে সেইসব প্রতিষ্ঠানের সিএসআর (কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপনসিবিলিটি) ফান্ডের অর্থ ট্রাস্টে দিতে পারেন বা অন্য কোনভাবেও যুক্ত থাকতে পারেন। আমরা চাইছি, চলতি বছরের মধ্যে ট্রাস্টের তহবিল গঠিত হোক, এটি গতি পাক। এজন্য সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করছি।

অনুষ্ঠানে তথ্য সচিব মোরতজা আহমেদ বলেন, প্রতিবছর প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে দুস্থ ও অসহায় সাংবাদিকদের জন্য এক কোটি টাকা অনুদান দেয়া হচ্ছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী চাইছেন একজন সাংবাদিকও যেন ব্যক্তিগত দুর্যোগে তাৎক্ষণিকভাবে আর্থিক নিরাপত্তাহীনতায় না ভোগেন। এজন্য তাঁর পরামর্শেই ট্রাস্ট গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে সাংবাকিরাই এটি পরিচালনা করবেন। এ লক্ষ্যে আইন প্রণয়ন করা হয়েছে এবং বিধিমালার খসড়াও চূড়ান্ত করা হয়েছে। বৈঠকে পিআইবির মহাপরিচালক এবং সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ আলমগীর এবং তথ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নূর হোসেন ও তার স্ত্রীর সম্পদের বিবরণী যাচাইয়ে অনুসন্ধান শুরু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেন ও তার স্ত্রী রুমা আক্তারের সম্পদের বিবরণী যাচাইয়ে অসুন্ধান শুরু করেছে দুদকের টিম। সোমবার সকাল থেকে সিদ্ধিরগঞ্জে সম্পদ অনুসন্ধান করতে গঠিত দুদকের টিম ওই অসুন্ধান কাজ শুরু করে। দুদকের উপ-পরিচালক মোঃ জুলফিকার আলী ও সহকারী পরিচালক শফিউল্লাহর নেতৃত্বে অনুসন্ধান শুরু হয়। অনুসন্ধানের সময় নূর হোসেনের স্ত্রী রুমা আক্তারের একটি ভবনের সন্ধান পায় দুদকের টিম। বিবরণীতে ওই ভবনের বিষয়টি উল্লেখ ছিল না বলে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাতে রাজি হননি অনুসন্ধান টিমের সদস্যরা। তারা জানান, তারা অনুসন্ধান করছেন। যাচাই-বাছাই শেষে বিষয়গুলো জানানো হবে।

রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহারে গণসচেতনতা বাড়াতে মতবিনিময় সভা

রাসায়নিক অস্ত্র কনভেনশন সম্পর্কিত জাতীয় কমিটির প্রতিনিধি (বিএনএসিডব্লিউসি) এবং ইনসেক্টিসাইডস (কীটনাশক), হারবিসাইডস (আগাছানাশক) সংক্রান্ত রাসায়নিক কারখানার প্রতিনিধিদের মধ্যে রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার সম্পর্কিত গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা সোমবার ঢাকা সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় তফসিলভুক্ত ও তফসিলবহির্ভূত রাসায়নিক দ্রব্যের ব্যবহার ও শ্রেণীবিভাগ, ইনসেক্টিসাইডস ও হারবিসাইডসে ব্যবহৃত বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্যের আমদানি, সংরক্ষণ ও ব্যবহার সংক্রান্ত নিয়মনীতি ও নিরাপত্তা এবং এ সংক্রান্ত জাতীয় কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। -আইএসপিআর