২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হাসপাতালে হামলা যুদ্ধাপরাধ

  • রাশিয়াকে দোষারোপ ফ্রান্স ও তুরস্কের, নিহত ৫০, অস্ত্রবিরতি চুক্তি বাস্তবায়ন করা কঠিন ॥ আসাদ

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কয়েকটি হাসপাতাল ও স্কুলে বিমান হামলা চালানোর ঘটনাকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ বলে অভিহিত করেছে ফ্রান্স ও তুরস্ক। বিদ্রোহী অধিকৃত ওই এলাকার একটি প্রসূতি ইউনিটসহ অন্তত পাঁচটি হাসপাতাল ও দুটি স্কুলে সোমবার সিরিয়ার সরকারী বাহিনী ও রাশিয়ার বিমান হামলায় ৫০ জনের বেশি বেসামরিক মানুষ নিহত হয় বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে। এই হামলাকে আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছে বিশ্ব সংস্থাটির মহাসচিব বান কি মুন। এদিকে এই হামলার পরই প্রথম পশ্চিমা নেতা হিসেবে জার্মান চ্যান্সেলর এ্যাঞ্জেলা মেরকেল নো-ফ্লাই জোন প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানিয়েছেন। খবর এএফপি, বিবিসি ও গার্ডিয়ানের।

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ গত সপ্তাহে মিউনিখে বিশ্বশক্তির সম্মত হওয়া অস্ত্রবিরতি চুক্তির বাস্তবায়ন নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। চুক্তি নিয়ে আসাদ তার প্রথম মন্তব্যে বলেছেন, এমন অস্ত্রবিরতির অর্থ এই না যে, সব পক্ষই তাদের অস্ত্র ব্যবহার বন্ধ রাখবে। এদিকে হামলার জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছে তুরস্ক। তবে আঙ্কারার এই অভিযোগের বিষয়ে কোন প্রতিক্রিয়া জানায়নি মস্কো। তুর্কি প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাভুতোগলু বলেছেন, রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ভবনগুলোতে আঘাত হেনে শিশুসহ অনেক বেসামরিককে হত্যা করেছে। এই হামলাকে ‘পরিষ্কার যুদ্ধাপরাধ’ বলে রাশিয়াকে অভিযুক্ত করেছে তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। জাতিসংঘ বলেছে, হামলার শিকার স্কুল ও হাসপাতালগুলোর মধ্যে ইউনিসেফের দুটি ও দাতব্য সংস্থা মেডিসিনস স্যানস ফ্রন্টিয়ার্সের (এমএসএফ) একটি হাসপাতাল রয়েছে। এমএসএফ অভিযোগ করে বলেছে, রাশিয়া ইদলিব প্রদেশের মারাত আল নুমান শহরে তাদের হাসপাতালটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে। ইদলিবের ওই হাসপাতালের এক সিনিয়র কর্মকর্তা, ইসাবেলে ডেফর্নি বলেছেন, হাসপাতাল লক্ষ্য করে অন্তত তিন থেকে চারবার বোমা হামলা করা হয়েছে এবং হাসপাতালটি ধ্বংসস্তূপে পরিণত করা হয়েছে। এই হামলায় পাঁচ রোগী, এক কেয়ারটেকার ও এক নিরাপত্তারক্ষী নিহত হয়েছে। এছাড়া হাসাপাতালের আরও আটজন কর্মকর্তা এখনও নিখোঁজ রয়েছে এবং আশঙ্কা করা হচ্ছে যে, তারাও নিহত হয়েছেন। এমএসএফের ওই ক্লিনিকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কঠোর নিন্দা করে ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ মাক এহো এটিকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ বলে বর্ণনা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা সুসান রাইসও সোমবার এ হামলার ‘কঠোর নিন্দা’ জানিয়েছেন। কিন্তু রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী ভেরোনিকা সকভোর্তসোভা বলেছেন, জঙ্গী সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) অবকাঠামো লক্ষ্য করে রুশ বিমান হামলা চালানো হচ্ছে। তবে ইদলিবের বেসামরিক এলাকায় রুশ বিমানগুলো বোমাবর্ষণ করেছে এ ধরনের অভিযোগ বিশ্বাস করার কোন কারণ তিনি দেখছেন না। জেনেভা থেকে তিনি বলেছেন, এটি কোনোভাবেই আমাদের প্রতিরক্ষা বাহিনীর কাজ নয়, এ বিষয়ে আমাদের পুরোপুরি বিশ্বাস আছে, কারণ এটি আমাদের আদর্শের পরিপন্থী। রাশিয়ায় নিযুক্ত সিরীয় রাষ্ট্রদূত রিয়াদ হাদাদ এ হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছেন। তবে পেন্টাগন সিরিয়ার এই দাবিকে ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা’ বলে প্রত্যাখ্যার করেছে।

এই মাত্রা পাওয়া