২০ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জেবের পক্ষে প্রচারে ভাই বুশ, ট্রাম্পের কঠোর সমালোচনা

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিও বুশ ২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারে প্রথম বারের মতো যোগ দিয়ে তার ভাই জেবের পক্ষে কথা বলেন এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট হওয়ার মতো চরিত্র ও আশাবাদী মনোভাব জেবেরই রয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের ক্ষোভ ও হতাশাকে উস্কে দেন এমন কাউকে মনোনীত করা আমেরিকানদের উচিত নয়। খবর এএফপি ও টেলিগ্রাফ অনলাইনের।

বুশ বলেন, আমি জেবকে কাজ করতে দেখেছি। তিনি জেব অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি মেকাবেলায় এক শক্তিশালী ও দৃঢ়চেতা ব্যক্তিই হবেন। বুশ সোমবার দক্ষিণ কেরোলাইনা অঙ্গরাজ্যের নর্থ চার্লসটনে এক সমাবেশে ভাষণ দিচ্ছিলেন। প্রেসিডেন্ট পদে রিপাবলিকান প্রার্থী মনোনয়নের পরবর্তী ভোট এ অঙ্গরাজ্যেই অনুষ্ঠিত হবে। বুশ বলেন, প্রেসিডেন্টের পদ এক গুরুদায়িত্ব। এর জন্য সুষ্ঠু বিচারশক্তি ও উত্তম ভাবনার প্রয়োজন হয়। তিনি জোর দিয়ে বলেন, তার ভাইই রিপাবলিকান প্রার্থী যিনি নবেম্বরে জয়ী হতে পারেন। বুশের ভাষণের আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির অগ্রগামী প্রার্থী ট্রাম্প। বুশ ১১ সেপ্টেম্বরের হামলা এবং ইরাক যুদ্ধে যেভাবে মোকাবেলা করেন, তার সমালোচনা করেন।

দৃশ্যত ধনাঢ্য ট্রাম্পের প্রতিই ইঙ্গিত করে বুশ বলেন, আমি বুঝতে পারি এখন কঠিন সময় এবং মানুষ ক্ষুব্ধ ও হতাশ। কিন্তু আমাদের ওভাল হাউসে এমন কারও দরকার নেই যিনি আমাদের ক্ষোভ ও হতাশার প্রতিফলন ঘটান। যিনি সবচেয়ে জোরে চিৎকার করতে পারেন, তিনিই সবচেয়ে শক্তিশালী ব্যক্তি নন। জেব বুশ তার প্রচার অভিযানের শুরুতে তার পারিবারিক নাম যথাসম্ভব পরিহার করেন। তিনি নিজের শক্তিতে চলতে চান বলে জানান। নিউ হ্যাম্পশায়ারে তিনি সেই সংকল্প থেকে পিছুটান দেন এবং তার মা সাবেক ফার্স্ট লেডি বারবারা বুশের পাশে দাঁড়িয়ে প্রকাশ্যে অবতীর্ণ হন। ট্রাম্প বলেন, মজার কথা, জেব তার ব্যর্থ প্রচার অভিযানে তার পরিবারের সাহায্য নিতে এবং এমনকি তার শেষ নামও ব্যবহার করতে চাননি। এর পর তিনি মা, এখন ভাইকে নিজের পক্ষে নামালেন।

ভারতে ব্যাঙ্গালুরুর স্কুলে হামলাকারী সেই চিতাটি পালিয়েছে

ভারতের ব্যাঙ্গালুরু শহরের একটি স্কুলে ধরা পড়ার আগে ছয়জনকে আহতকারী একটি পুরুষ চিতাবাঘ রবিবার খাঁচা ভেঙে পালিয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছে। খবর বিবিসির।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ব্যাঙ্গালুরুর একটি বন্ধ স্কুলে আট বছর বয়সী একটি চিতাবাঘকে ঘুরতে দেখা যায়। ওষুধ প্রয়োগে অচেতন করার আগে চিতাবাঘটির আক্রমণে একজন বিজ্ঞানী ও একজন বন কর্মকর্তাসহ ছয়জন আহত হন। অচেতন করার পর চিতাবাঘটিকে বানেরঘাট্টা জাতীয় উদ্যানে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় কিন্তু পরে বাঘটি খাঁচা থেকে পালিয়ে গেছে। এতে জনসাধারণের বিপদের কোন সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। আতঙ্কিত হওয়ার কোন কারণ নেই। কারণ বাঘটি এখন উদ্যানের ভেতরে ওর স্বাভাবিক পরিবেশেই আছে বলে হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেন উদ্যান পরিচালক সন্তোষ কুমার।