২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

একই মোবাইল বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নামে বাজারে বিক্রি হচ্ছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ মোবাইল ফোনের বাজারে দেশীয় ব্র্যান্ড বলতে কিছুই নেই বরং বিদেশ থেকে ব্র্যান্ডিং করা একই মোবাইল দেশের বাজারে আসছে ভিন্ন নামে। এমনকি ব্যবসায়ীদের চাহিদা অনুযায়ী নির্দিষ্ট ফিচার আর দামের মধ্যেই চীনা কোম্পানিগুলো তৈরি করছে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মুঠোফোন। এমন তথ্য দিয়ে সরকারের প্রতি বাজার পর্যালোচকদের আহ্বান, দেশেই মোবাইল ফোন তৈরি করতে যন্ত্রাংশ আমদানিতে শুল্কহার শূন্যতে নামিয়ে আনার। প্রায় দশ বছর ধরে নষ্ট মোবাইল ফোন ব্যবহার উপযোগী করে আসছেন ইস্টার্ন প্লাজার এক ব্যবসায়ী। সম্প্রতি তার ভা-ারে যুক্ত হয়েছে আইফোন, এইচটিসির মতো আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন সার্ভিসিং মেশিন। কিন্তু নামীদামী এসব ফোনের তুলনায় তার কাছে আসা নষ্ট ফোনের মধ্যে বিভিন্ন দেশীয় ব্র্যান্ডের আধিক্যই বেশি। দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে মোবাইল ফোনের নতুন গ্রাহক। বিটিআরসির তথ্যমতে, বর্তমানে ১৩ কোটি সিম ব্যবহৃত হচ্ছে ৮ কোটি মোবাইল ফোনসেটে। এর মধ্যে ৩ কোটির বেশি ফোন আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ব্র্যান্ডের, বাকি ৫ কোটি মুঠোফোন যোগান দিচ্ছে দেশীয় বিভিন্ন কোম্পানি, যার পুরোটাই আমদানিনির্ভর। এসব ফোনসেটের দাম কিছুটা কম হওয়ায় ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে সত্যি, কিন্তু এখনও ঘাটতি রয়েছে গ্রাহক আস্থা অর্জনে। তবে মোবাইল ফোন ব্যবসায়ীদের সংগঠন বিএমবিএ বলছে, দেশেই মোবাইল ফোন তৈরিতে প্রয়োজন আমদানি শুল্ক নির্ধারণে সরকারের নীতি সংশোধন, যেটি করা গেলে দেশীয় চাহিদা তো বটেই বাংলাদেশের তৈরি ফোন হতে পারে রফতানিও।

সৌদি আরবের সঙ্গে ইউরিয়া সার আমদানি চুক্তি স্বাক্ষর

বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশনের (বিসিআইসি) নিজস্ব উৎপাদন এবং আমদানির মাধ্যমে দেশে সুষ্ঠু সার সরবরাহ ও বিপণন করার দায়িত্ব পালন করে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় ইউরিয়া সার আমাদনির লক্ষ্যে শিল্প সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার নেতৃত্বে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি দল গত ৭ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সৌদি আরব সফর করেছেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি শিল্প সচিব, সৌদি আরবের নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মশিঅ এবং ইকোনমিক কাউন্সিলর ড. মোহাম্মদ হাসানের উপস্থিতিতে সাবিক, সৌদি আরবের সঙ্গে ২ লাখ মেঃ টন গ্রানুলার, ১ লাখ ৫ হাজার মেঃ টন প্রিল্ডসহ মোট ৩ লাখ ৫ হাজার মেঃ টন ইউরিয়া সার আমদানির জন্য জি টু জি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বিসিআইসির পক্ষে চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইকবাল এবং সাবিক, সৌদি আরবের পক্ষে জেনারেল ম্যানেজার (নাইট্রোজেন, বিইউ) আল রাব্বিয়ান আবু নাসের চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

এ চুক্তির ফলে দেশে ইউরিয়া সারের মজুদ বৃদ্ধিসহ ২০১৬-১৭ অর্থবছরে সুষ্ঠু সার সরবরাহে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। প্রতিনিধিদল সাবিক, সৌদি আরবের আল-জুবাইল শহরে অবস্থিত উৎপাদন কারখানা ও আল-জুবাইল বন্দরে সার লোডিং সুবিধাদীও পরিদর্শন করেন। -বিজ্ঞপ্তি।

বিকাশ দিয়ে পরিশোধ করা যাবে ইউনাইটেড হসপিটালে

বিকাশ ব্যবহারকারীরা এখন থেকে ইউনাইটেড হসপিটালের চিকিৎসা বিল পেমেন্ট করতে পারবেন বিকাশ দিয়ে। সম্প্রতি বিকাশ ও ইউনাইটেড হসপিটালের মাঝে এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি সই হয়েছে।

বিকাশ এর চীফ কমার্শিয়াল অফিসার রেজাউল হোসেন এবং ইউনাইটেড হসপিটালের চীফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার এমডি মুজিবুর রহমান নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন

বিকাশ ব্যবহারকারীকে প্রথমে *২৪৭#-এ ডায়াল করে বিকাশ মেন্যুতে যেয়ে ‘৩’ নির্বাচিত করে ‘পেমেন্ট’ পছন্দ করতে হবে। এরপরে বেশ কিছু ইন্টার‌্যাক্টিভ ধাপ অনুসরণ করে পেমেন্ট করা যাবে। বিকাশ দিয়ে পেমেন্টে গ্রাহককে কোন চার্জ প্রদান করতে হয় না।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউনাইটেড হসপিটালের চীফ অব কমিউনিকেশনস এ্যান্ড বিজনেস ডেভেলপমেন্ট, ডঃ শাগুফা আনোয়ার, ম্যানেজার, এমডি শাহরিয়ার আহমেদ, ডেপুটি ইন চার্জ আশরাফ উল মাসুম, এবং বিকাশের হেড অব বিজনেস সেলস, গোলাম আঞ্জুমানারুল ইসলাম, মাহমুদ আব্দুল্লাহ হারুন, হেড অব হিউম্যান রিসোর্স এবং এ্যাকাউন্ট ম্যানেজার, এম- কমার্স, এ এম সিরাজুল মওলা।-বিজ্ঞপ্তি