২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজনৈতিক সদিচ্ছা

ফিরোজ মৃধা

রাষ্ট্র পরিচালনা করার জন্য এবং দেশে শৃঙ্খলা রাখার জন্য প্রত্যেক রাষ্ট্রেরই নিজস্ব কিছু আইন থাকে। যে রাষ্ট্র যত সভ্য, শিক্ষিত ও সচেতন সেখানে এই আইন তত সম্মান পায়। তবে উন্নয়নশীল দেশগুলোর ক্ষেত্রে আইনের কঠোর প্রয়োগ করতে হয়, তারপরও আশানুরূপ ফল পাওয়া যায় না। আমাদের দেশের কথা যদি চিন্তা করা যায়, এখানে ট্রাফিক আইন আছে কিন্তু প্রয়োগের ক্ষেত্রে দুর্বলতা ও জনগণের আইন না মানার প্রবণতার কারণে প্রতিদিন বাড়ছে জনদুর্ভোগ, দুর্ঘটনায় আর নষ্ট হচ্ছে দৈনিক মূল্যবান কর্মঘণ্টা। রাস্তায় নামলে মনে হয় সবাই প্রতিযোগিতায় লিপ্ত কেউ কাউকে ছাড় দিতে চায় না, না আছে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, না আছে আইনের প্রতি শ্রদ্ধা। গাড়িচালকরা আছে বাড়তি টাকা কামানোর ধান্ধায়, যেখানে-সেখানে গাড়ি থামিয়ে যাত্রী উঠায় নামায়, নির্দিষ্ট জায়গায় গাড়ি পার্কিং না করে রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি করে, ট্রফিক সিগন্যাল অমান্য করে রাস্তায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা নিত্যঘটনা। ট্রাফিক পুলিশ এক্ষেত্রে অসহায়, আইনের প্রয়োগ করতে গেলেই ওপর মহলের ফোন, আইন ভঙ্গকারী পার পেয়ে যায় রাজনৈতিক পরিচয়ে। এই পার পাওয়ার কারণেই এরা আরও বেপরোয়া হয়ে যায়, সুতরাং সমস্যা বাড়তেই থাকে। ফুটপাথ দিয়ে সাধারণ মানুষ হাঁটবে এর উপায় নেই, মোটরসাইকেল চালকরা সুযোগ পেলেই এর ব্যবহার করে, নির্মাণসামগ্রী ও হকারের দখলে থাকে সারা বছর।

মহাসড়কগুলোতে মৃত্যুর মিছিল লেগে থাকে সারা বছর, ছোট গাড়ি চলাচল নিষেধ অমান্য করে চলছে, ওভারটেকিং নিষেধ থাকা সত্ত্বেও মানছে না কেউ, ফিটনেসবিহীন গাড়ির স্বর্গ যেন বাংলাদেশ। ফলে বাড়ছে দুর্ঘটনা ও অকাল মৃত্যুর বহর। এমন সমস্যা সমাধান করার জন্য সরকার নানাবিধ পরিকল্পনা করেছে। গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোকে চার লেন করা, ফ্লাইওভার নির্মাণ, মেট্রোরেল নির্মাণসহ আরও অনেক পরিকল্পনা হাতে নিয়ে এগোচ্ছে, আগামীতে হয়ত সমস্যা কিছুটা হলেও কমবে।

আমাদের শুধু কাঠামোগত উন্নয়ন করলেই চলবে না, পাশাপাশি এগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য মেধাসম্পন্ন দক্ষ জনবল তৈরি করাও জরুরী। ট্রাফিক সিগন্যাল আধুনিক করা ও মান্ধাতার আমলের আইন পরিবর্তন করে সমসাময়িক বিষয় বিবেচনা করে এগুলোকে নতুন করতে হবে। গাড়িচালকদের দক্ষতা বৃদ্ধি করার জন্য আধুনিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। গাড়ির ফিটনেস নিশ্চিত করার সঙ্গে গাড়িচালকেরও ফিটনেস (দক্ষতা) নিশ্চিত করতে হবে। রাজনৈতিক সীমাবদ্ধতার উর্ধে উঠে আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে, কোন কোন ক্ষেত্রে কঠোর হতে হবে। পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নিতে হবে, এক্ষেত্রে মিডিয়াকে ব্যবহার করতে হবে। আমরা দুর্ভোগ চাই না, মূল্যবান কর্মঘণ্টা নষ্ট করতে চাই না ও রাজপথে মত্যুর মিছিলও দেখতে চাই না। শুধু ট্রাফিক সিগন্যাল ডিজিটালাইজ, কাঠামোগত উন্নয়ন ও নতুন নতুন আইন করে এই সমস্যার সমাধান করা যাবে না। এজন্য দরকার পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, দেশের প্রতি ভালবাসা ও রাজনৈতিক সদিচ্ছা।

ধোবাউড়া, ময়মনসিংহ থেকে