২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রামে ইসলামী ভার্সিটির পাঁচ ক্যাম্পাস ফের অবৈধ ঘোষণা

আহমেদ হুমায়ুন, চট্টগ্রাম অফিস ॥ জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদ পরিচালিত চট্টগ্রামের আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (আইআইইউসি) ৫টি ক্যাম্পাস অবৈধ ঘোষণা করার পরও এসব ক্যাম্পাসে ছাত্র ভর্তিসহ বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত থাকায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ইউজিসির পক্ষ থেকে বুধবার নতুন করে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে ইউজিসি কর্তৃপক্ষ বলেছে, এসব ক্যাম্পাস অবৈধ। এতে শিক্ষার্থীদের ভর্তি না হওয়ার জন্য সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি এসব ক্যাম্পাস থেকে অর্জিত ডিগ্রী ইউজিসি কর্তৃক গ্রহণযোগ্য হবে না বলেও জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের চকবাজারে জামায়াতীদের উদ্যোগে ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদের পরিচালনায় ১৯৯২ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের গোড়াপত্তন ঘটে। পরবর্তীতে ইউজিসির কোনরূপ অনুমোদন ছাড়াই এটিকে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে নামকরণ করা হয়। এ ব্যাপারে পত্রপত্রিকায় বিস্তারিত রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর ইউজিসি কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপে আন্তর্জাতিক শব্দটি বাদ দিতে তারা বাধ্য হয়। অবশ্য পরবর্তীতে ইউজিসি কর্তৃপক্ষের অনুমোদনে এটিকে পুনরায় আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে নামকরণ করা হয়।

বর্তমানে চট্টগ্রামের সীতাকু- উপজেলার কুমিরা এলাকায় বিপুল পরিমাণ জমি ক্রয় করে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ক্যাম্পাস ও আবাসিক ছাত্রাবাস প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এর পাশাপাশি চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকায় ক্যাম্পাস করা হয়েছে ৫টি। ইউজিসি কর্তৃপক্ষ বলেছে এসব ক্যাম্পাস সম্পূর্ণ অনুমোদনহীনভাবে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে গত ডিসেম্বর মাসে ইউজিসির পক্ষ থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে নোটিস প্রদান করা হয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এসব নোটিসের তোয়াক্কা না করে এসব অবৈধ ক্যাম্পাসে ছাত্র ভর্তিসহ কথিত শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখে। এ ব্যাপারে বিভিন্ন মহলের পক্ষ থেকে ইউজিসিসহ সরকারের উর্ধতন মহলে অবহিত করা হলে কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নজরে এনে তদন্ত করে। তদন্তে এসব ক্যাম্পাস সম্পূর্ণ অবৈধ হিসেবে চিহ্নিত হয়। ফলে ইউজিসি কর্তৃপক্ষ বুধবার পত্রপত্রিকার মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ ক্যাম্পাসকে অবৈধ ঘোষণা দিয়ে এতে ছাত্র ভর্তিসহ সব ধরনের কার্যক্রমের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে।

জানা গেছে, ইউজিসি আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামকে তাদের অনুমোদনহীন আউটার ক্যাম্পাসগুলো বন্ধ করে দিতে ২০১৫ সালে বেশ কয়েকবার নির্দেশনা পাঠায়। কিন্তু তাতে তারা কর্ণপাত করছে না। বার বার নির্দেশনা দেয়ার পরও আইআইইউসি কর্তৃপক্ষ ইউজিসির সিদ্ধান্ত মেনে নেয়নি। উল্টো জানুয়ারি সেশনে তারা এসব অবৈধ ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অবৈধ এসব ক্যাম্পাসে নিয়মিত শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। বর্তমানে অনুমোদনবিহীন এ পাঁচ ক্যাম্পাসে দুই শিফটে পড়ালেখা করছেন কয়েক হাজার শিক্ষার্থী।

এদিকে এ ঘটনায় ইউজিসি কর্তৃপক্ষ জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রদান করেছে। সর্বশেষ বুধবার তারা চট্টগ্রামের একটি আঞ্চলিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। বিজ্ঞপ্তিতে অনুমোদন ছাড়া নগরীতে পাঁচটি ক্যাম্পাস পরিচালনা করায় আইআইইউসি ক্যাম্পাসগুলোকে অবৈধ ঘোষণা করে সেখানে শিক্ষার্থীদের ভর্তি না হতে সতর্কতা জারি করা হয়। পাশাপাশি বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, এসব ক্যাম্পাস থেকে অর্জিত ডিগ্রী ইউজিসি কর্তৃক গ্রহণযোগ্য হবে না।