১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘এমএসএন’ সাফল্য সইতে পারছেন না রোনাল্ডো!

  • রেগে সংবাদ সম্মেলন ত্যাগ সি আর সেভেনের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর চড়া মেজাজের কথা সবারই জানা। আরও একবার নিজের বদ অভ্যাসের নমুনা দেখালেন সময়ের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। তবে এমন হয়েছে তাকে উস্কে দেয়ায়। ইতালির রোমের স্টাডিও অলিম্পিকোতে মঙ্গলবার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ফুটবলে স্বাগতিক রোমার বিপক্ষে মাঠে নামার আগে সংবাদ সম্মেলনে আসেন সি আর সেভেন।

সেখানে একাধিক অপ্রিয় প্রশ্ন শুনে ধৈর্য ধরে রাখতে পারেননি রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগীজ ফরোয়ার্ড। আচমকাই সংবাদ সম্মেলন থেকে বের হয়ে আসেন তিনি। রোমার বিপক্ষে বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচ খেলেছে অতিথি রিয়াল। এ কারণে আগের দিন কোচ জিনেদিন জিদানের সঙ্গে সংবাদ সম্মেলনে আসেন দলের সেরা তারকা রোনাল্ডো। কিন্তু গ্যারেথ বেলের সঙ্গে তার সম্পর্ক, বার্সিলোনা ত্রয়ীর সঙ্গে তুলনার পর উঠে আসে এ্যাওয়ে ম্যাচে সি আর সেভেনের সম্প্রতি ব্যর্থতার প্রসঙ্গ। একের পর এক অপ্রিয় প্রশ্ন শুনে আর নিজেকে ঠিক রাখতে পারেননি সাবেক তিনবারের ফিফা সেরা তারকা।

সময়টা খুব একটা ভাল যাচ্ছে না রোনাল্ডোর। ২০১৫ সালের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কারটা তার চোখের সামনে দিয়ে জিতে নিয়েছেন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসি। গত মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদও ছিল শিরোপাবঞ্চিত। ট্রেবলজয়ী বার্সিলোনা এবারের মৌসুমেও দেখিয়ে চলেছে দুর্দান্ত নৈপুণ্য। মেসি-নেইমার-সুয়ারেজকে নিয়ে গড়া বার্সার ত্রিফলা আক্রমণভাগের জয়জয়কার চলছে ফুটবলবিশ্বে। রোনাল্ডোর যে বিষয়টা খুব বেশি পছন্দ হচ্ছে না, তা সম্প্রতি খুব ভালই বোঝা গেল। মেসি-নেইমার-সুয়ারেজদের প্রসঙ্গ উঠতেই বেশ ক্ষেপে গেছেন তিনি। ঝাঁজালো ভাষায় জবাব দিয়েছেন সাংবাদিকদের।

২০১৩ সালে রিয়াল মাদ্রিদ যখন ট্রান্সফার ফির নতুন রেকর্ড গড়ে গ্যারেথ বেলকে দলে ভেড়ায়, তখন বেশ ভালই সাড়া পড়ে গিয়েছিল ফুটবলবিশ্বে। রোনাল্ডো-বেল-বেনজেমার সমন্বয়ে গড়া আক্রমণভাগের সামনে প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগ ছিন্নভিন্ন হয়ে যাবে, এমন সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন অনেকেই। এই ত্রয়ীকে আদর করে ডাকা শুরু হয় ‘বিবিসি’ নামে। ২০১৩-১৪ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ও কোপা ডেল’রে শিরোপা জিতে নজরও কাড়েন রিয়ালের ‘বিবিসি’ আক্রমণভাগ। কিন্তু তারপর থেকে অনেকটাই নিষ্প্রভ হয়ে গেছেন এই ত্রয়ী।

অন্যদিকে ২০১৪ সালে উরুগুয়ের স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের আগমনের পর বার্সিলোনা হয়ে উঠেছে আরও দুর্দান্ত। মেসি-সুয়ারেজ-নেইমারদের দুর্দান্ত আক্রমণভাগ প্রতি মুহূর্তে যেন নিজেদের নিয়ে যাচ্ছেন নতুন উচ্চতায়। পরশু ‘এমএসএস’ খ্যাত বার্সার আক্রমণভাগের দারুণ সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন করা হয় রোনাল্ডোকেও। কিন্তু সাংবাদিকদের সেই প্রশ্ন শুনে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠেন পর্তুগীজ তারকা। মাঠের বাইরে মেসি-নেইমার-সুয়ারেজদের সম্পর্ক ভাল থাকার কারণেই তারা মাঠে দারুণ নৈপুণ্য দেখাতে পারছেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে রোনাল্ডো বলেন, ‘আমরা কীভাবে জানি তাদের সম্পর্কটা ভাল? কারণ এ রকমটা পত্রিকায় লেখা হয়। আমার কোন প্রয়োজন নেই বেনজেমার সঙ্গে ডিনার করার বা বেলের কোন প্রয়োজন নেই আমার বাড়িতে আসার। আমাদের যা করার মাঠেই করতে হয়। এ জন্য আমাদের একে অপরকে চুম্বন করার কোন প্রয়োজন নেই। মাঠের বাইরের সম্পর্কের কোন অর্থ নেই আমার কাছে।’

সাংবাদিকদের আরেকটি প্রশ্নের জবাবেও রোনাল্ডো ক্ষোভ ঝড়ান। ২০১৫ সালের ২৯ নবেম্বরের পর থেকে রোনাল্ডো একটিও গোল করতে পারেননি প্রতিপক্ষের মাঠে। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ম্যাচে রোমার বিপক্ষে খেলতে যাওয়ার আগে এই পরিসংখ্যান তাকে মনে করিয়ে দেন এক সাংবাদিক। এর জবাবে ক্ষুব্ধ হয়ে পর্তুগাল অধিনায়ক বলেন, ‘আমি স্পেনে আসার পর প্রতিপক্ষের মাঠে গিয়ে আমার চেয়ে বেশি গোল আর কে করতে পেরেছে? একজনের নাম বলেন যে আমার চেয়ে বেশি গোল করেছে। কোন উত্তর নেই? ঠিক আছে। সবাইকে ধন্যবাদ।’ এই বলে চটজলদি সংবাদ সম্মেলন স্থান ত্যাগ করেন রোনাল্ডো।