১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মোবাইল ফোন গ্রাহক বৃদ্ধির ধারায় ছেদ

  • বাড়ছে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গত ডিসেম্বর মাসের তুলনায় জানুয়ারিতে দেশে মোবাইল ফোন গ্রাহকের সংখ্যা ১৭ লাখ ৬৪ হাজার কমেছে। কিন্তু ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা বেড়েছে ২০ লাখ ৪৭ হাজার। দেশের ছয়টি মোবাইল ফোন অপারেটরের মধ্যে জানুয়ারিতে একমাত্র রাষ্ট্রীয় কোম্পানি টেলিটকের গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) বৃহস্পতিবার জানুয়ারি মাসের মোবাইল ও ইন্টারনেট গ্রাহকদের পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। দীর্ঘদিন পর মোবাইল ফোন গ্রাহকের সংখ্যা বৃদ্ধির ধারায় ছেদ পড়ল।

তবে কি কারণে একযোগে পাঁচটি অপারেটরের গ্রাহক কমেছে তা তাৎক্ষণিকভাবে সংশ্লিষ্টরা জানাতে পারেননি। দেশে বর্তমানে বায়োমেট্রিক বা আঙ্গুলের ছাপ পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন কার্যক্রম চলছে। গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

বিটিআরসির পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, জানুয়ারি মাসে দেশে মোট মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৩ কোটি ১৯ লাখ ৫৬ হাজার। ডিসেম্বর মাসে এ সংখ্যা ছিল ১৩ কোটি ৩৭ লাখ ২০ হাজার। একমাসে গ্রাহক কমেছে ১৭ লাখ ৬৪ হাজার।

অপরদিকে ডিসেম্বরে ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি ৪১ লাখ ২০ হাজার থাকলেও জানুয়ারিতে তা বেড়ে হয়েছে ৫ কোটি ৬১ লাখ ৬৭ হাজার। তবে ২০ লাখ ৪৭ হাজারের মধ্যে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীই বেড়েছে ১৯ লাখ ৭৮ হাজার।

ডিসেম্বরে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫ কোটি ১৪ লাখ ৫৩ হাজার থাকলেও জানুয়ারিতে এ সংখ্যা ৫ কোটি ৩৪ লাখ ৩১ হাজার। অন্যান্য ইন্টারনেট গ্রাহক (ওয়াইম্যাক্স, আইএসপি ও পিএসটিএন) ৬৯ হাজার বেড়েছে। এ ধরনের ইন্টারনেট গ্রাহক ডিসেম্বরে ২৬ লাখ ৬৬ হাজার থাকলেও পরের মাসেই তা হয়েছে ২৭ লাখ ৩৭ হাজার।

গ্রাহক বেড়েছে শুধু টেলিটকের : জানুয়ারিতে রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান টেলিটকের গ্রাহক বেড়েছে ৬৮ হাজার। ডিসেম্বরে টেলিটকের গ্রাহক ৪১ লাখ ৪৩ হাজার ছিল, একমাস পর তা হয়েছে ৪২ লাখ ১১ হাজার।

এছাড়া অন্য পাঁচটি অপারেটরের সবারই গ্রাহক কমেছে। অপারেটরদের মধ্যে এক মাসে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক কমেছে রবির।

রবির গ্রাহক কমেছে ৫ লাখ ২২ হাজার। ডিসেম্বরে রবির গ্রাহক ছিল ২ কোটি ৮৩ লাখ ১৭ হাজার, জানুয়ারিতে তা হয়েছে ২ কোটি ৭৭ লাখ ৯৫ হাজার। বাংলালিংকের গ্রাহক কমেছে ৪ লাখ ৯৭ হাজার।

এদের গ্রাহক ৩ কোটি ২৮ লাখ ৬৫ হাজার থেকে কমে হয়েছে ৩ কোটি ২৩ লাখ ৬৮ হাজার।

গ্রামীণ ফোনের (জিপি) গ্রাহক কমেছে ৪ লাখ ৭৫ হাজার। ৫ কোটি ৬৬ লাখ ৭৯ হাজার থেকে জানুয়ারিতে জিপির গ্রাহক হয়েছে ৫ কোটি ৬২ লাখ ৪ হাজার। এয়ারটেলের গ্রাহক কমেছে ২ লাখ।

জানুয়ারিতে এয়ারটেলের গ্রাহক এক কোটি ৫ লাখ ১০ হাজারে দাঁড়িয়েছে, একমাসে আগে এ সংখ্যা ছিল এক কোটি ৭ লাখ ১০ হাজার। এ সময়ে সিটিসেলের গ্রাহক কমেছে এক লাখ ৪০ হাজার। ডিসেম্বর মাসে সিটিসেলের গ্রাহক ১০ লাখ ৭ হাজার থাকলেও পরের মাসেই তা হয়েছে ৮ লাখ ৬৭ হাজার।