২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রামে মিটারে চলে না অটোরিক্সা

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম ॥ চট্টগ্রামে শতকরা ৯৮ ভাগ সিএনজি অটোরিক্সা মিটারে চালানো হচ্ছে না। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির এক পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

সূত্র জানিয়েছে, নগরীতে চলাচলকারী সিএনজি অটোরিক্সার ৯৮ ভাগ চলে চুক্তিতে, বকশিস দাবি করে ৮৭ ভাগ সিএনজি অটোরিক্সা চালক, মিটারবিহীন চলে ৩৩ ভাগ এবং মিটার নষ্ট ২৮ ভাগ সিএনজি অটোরিক্সার।

নগরীর আগ্রাবাদ, বহদ্দারহাট, চকবাজার, শাহ আমানত ব্রিজ, কালুরঘাট, লালদিঘী পাড়সহ বিভিন্ন এলাকায় সিএনজি অটোরিক্সার মিটারে চলাচল পর্যবেক্ষণ করে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, বর্তমান বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই চালক মিটার অনুযায়ী ভাড়া নিতে আগ্রহী নন। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পুলিশের নজর এড়াতে মিটারের ভাড়ার অতিরিক্ত বকশিস দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে যাত্রীদের মিটারে চালিয়ে গন্তব্যে নিয়ে যায়। আর বকশিস দিতে না চাইলে হয় তারা মিটার বন্ধ রাখে অথবা যাত্রীদের গন্তব্যে নিয়ে যেতে অস্বীকার করে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে চট্টগ্রামে মিটারে অটোরিক্সা চলাচল বাধ্যতামূলক করে বিজ্ঞপ্তি জারি করে সিএমপি। কিন্তু পরবর্তীতে মিটার সংযোজনের সময় এক মাস বাড়িয়ে দেয়া হয়। সর্বশেষ গত ২৭ জানুয়ারি সিএনজি অটোরিকশার চালক-মালিক এবং বিআরটিএর প্রতিনিধিদের সঙ্গে পুলিশের বৈঠকে তারা ৩১ জানুয়ারির মধ্যে মিটার সংযোজনের অঙ্গীকার করেন। পরবর্তীতে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে চট্টগ্রাম নগরীতে মিটারে সিএনজি অটোরিক্সা চালানো বাধ্যতামূলক করা হয়। প্রথমদিকে পুলিশ ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) রাস্তায় নেমে মিটারবিহীন সিএনজি অটোরিক্সার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে প্রায় ১৭০০ সিএনজি অটোরিক্সার বিরুদ্ধে মামলা ও বেশ কিছু সিএনজি অটোরিক্সা জব্দ করে। কিন্তু এর কিছুদিন পরই এই অভিযান আক্ষরিক অর্থে কাগজে কলমে সীমাবদ্ধ।

নির্বাচিত সংবাদ